দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি) মোঃ সানিউল ফেরদৌস বলেছেন, আশা দেশের সুবিধাবঞ্চিত পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের উপর বিভিন্ন কর্মসুচী বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। জিপিএ-৫ আমাদের জীবনের সবকিছু যেন না হয়। পড়াশোনার মধ্যে না থেকে বাহিরের জগতকে জানতে হবে। আমাদেরকে গুণগত শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ ও জাতি পরিচালনার কর্নধার হতে হবে।

৩০ অক্টোবর বুধবার দিনাজপুর শিল্পকলা একাডেমী অডিটোরিয়ামে আশা দিনাজপুর জেলা কর্তৃক আয়োজিত দিনাজপুর জেলায় ২০১৯ সালে এসএসসি এবং এইচসিস পরীক্ষায় আশার সদস্য’র সন্তানদের মধ্যে থেকে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন। আশা দিনাজপুর ডিভিশনের ডিভিশনাল ম্যানেজার মোঃ হাফিজুর রহমান আকন্দ এর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট আশা ঢাকা’র সাজ্জাত হায়দার।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর সরকারি সিটি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মোজাম্মেল হক, দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক গোলাম নবী দুলাল, আদর্শ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ড. সৈয়দ রেদওয়ানুর রহমান, সহকারী জেলা শিক্ষা অফিসার আব্দুল বারী। মেধাবী শিক্ষার্থীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন ছাত্র মোঃ তুহিন ইসলাম ও ছাত্রী মোপাতাতুন জান্নাত।

সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন আশা দিনাজপুর (সদর) জেলা ডিএম মোঃ আফতাব উদ্দীন। প্রধান অতিথি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি) মোঃ সানিউল ফেরদৌস ও বিশেষ অতিথিদ্বয় ২০১৯ সালে এসএসসি ও এইচসিসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ১০৩ জন কৃতি শিক্ষার্থীকে ১০ হাজার টাকা করে এবং যাতায়াত ভাড়া ১ হাজার মোট ১১ হাজর টাকা করে ১১ লক্ষ ৩৩ হাজার টাকা বৃত্তি প্রদান করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য