ঝড়ো বাতাসে ক্যালিফোর্নিয়ার ওয়াইন কাউন্টিজুড়ে ছড়িয়ে পড়া দাবানল আরও তীব্র হয়ে ওঠায় গভর্নর গাভিন নিউসোম যুক্তরাষ্ট্রের অঙ্গরাজ্যটিতে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন।

উত্তরাঞ্চলীয় সোনোমা কাউন্টির বিশাল এলাকাজুড়ে ছড়িয়ে পড়া দাবানলের কারণে স্থানীয় এক লাখ ৮০ হাজার বাসিন্দাকে ঘরবাড়ি ছেড়ে সরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ পরিস্থিতিতে এলাকা ছেড়ে পালানোর চেষ্টারত লোকজন ও তাদের যানবাহনে সোনামার সান্তা রোসা এলাকার ও এর আশপাশের সড়কগুলো পূর্ণ হয়ে আছে বলে বিবিসি জানিয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, এক ডজনেরও বেশি দাবানলে ওই এলাকার প্রায় ৪০০ স্থাপনা পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে।

আরও হাজার হাজার বাড়ি দাবানলের হুমকির মুখে রয়েছে।

এই দাবানল ক্যালিফোর্নিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় বিদ্যুৎহীনতার কারণ ঘটিয়েছে। ইতোমধ্যেই ১০ লাখেরও বেশি লোক বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রয়েছেন।

ক্ষতিগ্রস্ত সঞ্চালন লাইনগুলো যেন নতুন দাবানল সূত্রপাতের কারণ না হয় তার জন্য চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে বিদ্যুৎ কোম্পানিগুলো। আগামী কয়েক ঘণ্টায় আরও ১০ লাখ বাসিন্দার বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কিনকেইড দাবানল নামের সবচেয়ে বড় দাবানলটির তাণ্ডবে সোনোমা কাউন্টির ৩০ হাজার একর এলাকা পুড়ে গেছে।

দাবানলগুলো ব্যাপ্তিতে শঙ্কিত হয়ে প্যাসিফিক গ্যাস এন্ড ইলেকট্রিক (পিজিএন্ডই) পূর্ব সতর্কতা হিসেবে বিদ্যুৎ সঞ্চালন বন্ধ করে দিয়েছে।

পিজিএন্ডই জানিয়েছে, বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়ায় উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার ৩৬টি কাউন্টির নয় লাখ ৪০ হাজার বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়বে।

দমকল বিভাগ জানিয়েছে, প্রত্যন্ত, খাড়া পাহাড়ি এলাকাগুলো আগুনে জ্লতে থাকায় দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না।

জাতীয় আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, শক্তিশালী একটি ঝড়ের কারণে ওই অঞ্চলে ‘দাবানল ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার আবহাওয়া পরিস্থিতি’ তৈরি হতে পারে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য