দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় দিনাজপুরের বীরগঞ্জে দুই সাংবাদিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার সাংবাদিকরা হলেন পৌর শহরের মৃত কফিল উদ্দিনের ছেলে মোঃ আবেদ আলী (৫৫) এবং একই এলাকার দক্ষিণ সুজালপুর গ্রামের মৃত আবদুল কাদেরের ছেলে মোঃ মোশারফ হোসেন (৪৫)। সাংবাদিক আবেদ আলী দৈনিক করতোয়া পত্রিকায় উপজেলা প্রতিনিধি। তবে মোঃ মোশারফ হোসেন কোন পত্রিকার প্রতিনিধি তা জানা যায়নি।

বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ আবদুল খালেক সরকার দুই জন সাংবাদিক সহ আট জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে রাতেই দুই সাংবাদিককে গ্রেফতার করে এবং তাদের বাড়ী থেকে ল্যাপটপ সহ বিভিন্ন ধরনের প্রশাসনের বিরুদ্ধে লেখা আপত্তিকর কাগজপত্র উদ্ধার করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, মিথ্যা অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাংবাদিক আবেদ আলী ও মোশারফ হোসেন চেয়ারম্যান আবদুল খালেক সরকারের কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। চেয়ারম্যান তাদের চাঁদার দাবিকৃত ৫০ হাজার টাকা না দিতে পারায় আবেদ আলী তাঁর ফেসবুক আইডিতে নিজপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম এ আবদুল খালেক সরকার-কে জড়িয়ে একটি ধর্ষনের সংবাদ পোষ্ট করে। ইউপি চেয়ারম্যান এম এ আবদুল খালেক সরকার সম্মান হানীর কারণে তিনি বীরগঞ্জ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর-২৫ (ক) (খ)/২৯/৩১/৩৫ ধারা মোতাবেক একটি মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং ২০, তাং-২৪/১০/২০১৯ ইং।

এর আগে বৃহস্পতিবার বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ সমন্বয় সভায় উপজেলা পরিষদের সমন্বয় সভায় উপস্থিত অনেকে সাংবাদিক আবেদ আলী ও মোশারফ হোসেনের বিরুদ্ধে অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাংবাদিক আবেদ আলী ও মোশারফ হোসেনের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থগ্রহনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয় বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইয়ামিন হোসেন।

এ ব্যাপারে বীরগঞ্জ থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ সাকিলা পারভিন জানান, আটকরা সাংবাদিকতার আড়ালে চাদাবাজিসহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত। বেসকারী টেলিভিশন ডিবিসি সাংবাদিকদের উপর হামলা এবং দুইটি চাঁদাবাজি মামলাসহ তাদের বিরুদ্ধে বীরগঞ্জ থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। চাঁদা না দিলে মিথ্যা সংবাদ তৈরি করে ফেসবুক আইডিতে পোষ্ট করেন বলে তিনি জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য