অর্থনৈতিক সংকটের প্রতিবাদে গত এক সপ্তাহ ধরে লেবাননে সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলছে। বিক্ষোভের মুখে সোমবার কিছু সংস্কারের ঘোষণা দিয়েছিলেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরি। কিন্তু আন্দোলনকারীরা সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে গতকাল বুধবার জাল এল-দিব মহাসড়কে বিক্ষোভ করেন। এসময় লেবাননের সেনাসদস্যরা তাদের ঘিরে রাখেন।

দেশটিতে জরুরি অর্থনৈতিক অবস্থা ঘোষণা, দুর্নীতি, মার্কিন ডলারের সংকট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর ভয়েস কলে ট্যাক্স যোগ করার পরিকল্পনার প্রতিবাদে লেবাননের হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ সমাবেশ করে আসছে। হোয়াটস আপ ও ম্যাসেঞ্জারে ডাক দেওয়া আহ্বানে সাড়া দিয়ে বিক্ষোভকারীরা প্রস্তাবিত করের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে প্রতিবাদে অংশ নিতে শুরু করে।

সরকার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ভয়েস কলে ট্যাক্স যোগ করার পরিকল্পনা বাদ দিলেও বিক্ষোভকারীরা সার্বিক রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রাখে। গত কয়েক বছরের মধ্যে দেশটিতে এত বিশাল প্রতিবাদ বিক্ষোভ আর হয়নি।

লেবাননের অর্থনীতি বেশ কয়েকবছর যাবৎ চড়াই উতরাইয়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। বিশ্ব ব্যাংকের হিসাব মতে, লেবাননের জনগণের এক-তৃতীয়াংশেরও বেশি মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করছে।—এএফপি

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য