সিরীয় কুর্দিদের এক সিনিয়র কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তুর্কি-সিরিয়া সীমান্ত থেকে পিছু হটতে তারা রাজি আছেন, যদি তুরস্ক তাদের সেনা ও বেসামরিকদের দখলকৃত শহর থেকে চলে যাওয়ার অনুমতি দেয়। যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় তুরস্কের সঙ্গে সমঝোতার আলোকে এ কথা জানালো কুর্দিরা। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এ খবর জানিয়েছে।

এই প্রথম কুর্দিদের পক্ষ থেকে প্রকাশ্যে সীমান্তবর্তী অঞ্চল থেকে সরে যেতে সম্মতির কথা জানানো হলো। তারা জানিয়েছে, বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। ২০১৯ সালের ৯ অক্টোবর তুর্কি সীমান্তবর্তী সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় এলাকা থেকে সিরিয়ার কুর্দি বিদ্রোহীদের উৎখাতে অভিযান শুরু করে তুরস্ক। পরে ওয়াশিংটনের মধ্যস্থতায় গত ১৭ অক্টোবর ৫ দিনের যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয় আঙ্কারা।

কুর্দি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস (এসডিএফ)-এর সিনিয়র কর্মকর্তা রেডুর খলিল জানান, রবিবার রাস আল-আইন শহর থেকে যোদ্ধা ও বেসামরিক লোকদের সরিয়ে নেওয়া হবে, যদি না কোনও কারণে দেরি হয়।

এসডিএফ যোদ্ধাদের বেশিরভাগই কুর্দিদের পিপলস প্রটেকশন ইউনিটস (ওয়াইপিজি)-এর সদস্য। ওয়াইপিজিকে তুরস্ক তাদের দেশে নিষিদ্ধ ঘোষিত কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) শাখা হিসেবে মনে করে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান ও যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের বৈঠকে পাঁচ দিনের যুদ্ধবিরতির ঘোষণা আসে। সমঝোতার পরও তুর্কি সমর্থিত বাহিনী ও কুর্দি যোদ্ধাদের পক্ষ থেকে সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সমঝোতা অনুসারে, তুর্কি-সিরিয়া সীমান্ত থেকে কুর্দিদের সরে যেতে ১২০ ঘণ্টা সময় দিতে রাজি হয়েছে তুরস্ক। তবে সমঝোতায় কোন কোন এলাকা থেকে কুর্দিদের সরে যেতে হবে তা উল্লেখ করা হয়নি।

এসডিএফ কর্মকর্তা খলিল জানান, তাদের বাহিনী সীমান্ত থেকে ৩০ কিলোমিটার ভেতরে সরে যাবে। এরপর তারা রাস আল-আইন ও তাল আবিয়াদ শহর থেকে ১২০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান নেবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য