দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম বলেছেন, আল্লাহর দোহাই দিয়ে না মারার জন্য খুনিদের কাছে আর্তনাত জানিয়েছিলেন শেখ রাসেল। চিৎকার করে সেদিন বলেছিল, আল্লাহর দোহাই আমাকে মেরে ফেলবেন না। আমি আপনাদের পায়ে পড়ি, আমাকে ছেড়ে দেন।

সেদিন শিশু রাসেলের আর্তচিৎকারে খোদার আরশ কেঁপে উঠলেও টলাতে পারেনি খুনি পাশানদের মন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সাথে এই নিষ্পাপ শিশু রাসেলকে ঠান্ডা মাথায় খুন করেছিল দানবের দল। তারা খুন করার পর এই হত্যাকান্ডের বিচার রুখতে জাতীয় সংসদে অধ্যাদেশ জারী করেছিল।

১৮ অক্টোবর শুক্রবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেল এর ৫৫তম জন্মবার্ষিকী-২০১৯ উপলক্ষে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী দিনাজপুর জেলা শাখার আয়োজনে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান প্রধান অতিথির বক্তব্য জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম এ কথা বলেন।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ শরিফুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল আলম। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ রাজিউর রহমান, দিনাজপুর সরকারি কলেজে দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মাসুদুল হক প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে শিশুদের সাথে নিয়ে শেখ রাসেলের ৫৫তম জন্মবার্ষিকী’র কেক কাটেন প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম। এর আগে শিশুদের চিত্রাংকন ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। শেষে শিশু একাডেমীর শিশু শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এরপর চিত্রাংকন ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিশুদের মাঝে পুরস্কার বিতরন করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য