ডার্ক ওয়েবে ‘চাইল্ড পর্ণ’ দেখার দায়ে তিনশ’র বেশি পর্ণপ্রেমীকে আটক করা হয়েছে। এর আগে শিশুকেন্দ্রিক যৌনাচার ও নৃশংসতা ছড়ানোর দায়ে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় একটি ‘ডার্ক ওয়েব চাইল্ড পর্ণ সাইট’ বন্ধ করে দিয়েছে তদন্তকারী কর্মকর্তারা। ব্রিটেন, যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ কোরিয়া ও জার্মানীর যৌথ একটি টাস্কফোর্স ‘ওয়েলকাম টু ভিডিও’ নামের ওই ওয়েবসাইটটির বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে গিয়ে ৩৮ টি দেশ থেকে এসব পর্ণপ্রেমীদের আটক করে। খবর বিবিসির।

পর্ণসাইটটির মালিক জং উ সন তিন বছর ধরে দক্ষিণ কোরিয়া থেকে নিজের অপরাধ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলেন। অবশেষে গত বছর একটি শিশু যৌন নিপীড়নের তদন্ত করার সময় ডার্ক ওয়েবে চলা এই সাইটটির অস্তিত্ব ব্রিটিশ এক অপরাধ তদন্তকারী দলের নজরে আসে। অতি দ্রুত তারা এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় এবং সাইটটি বন্ধ করে দেয়।

গত বছর সাইটটি বন্ধ করা হলেও, বুধবার ব্রিটিশ তদন্তকারী দল এ ঘটনায় ৩৩৭ জনকে আটক করা হয়েছে বলে স্বীকার করে। শিশুকেন্দ্রিক পর্ণসাইটটি থেকে সর্বমোট দুই লাখ ভিডিও ১০ লাখের চেয়েও বেশিবার ডাউনলোড করা হয়েছে বলে জানায় তদন্তকারী কর্মকর্তারা।

২৩ বছর বয়সী উ সনেকে বর্তমানে দক্ষিণ কোরিয়ার একটি কারাগারে বন্দী রাখা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ৯ টি অভিযোগে মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছে মার্কিন কর্মকর্তারা।

এছাড়া এই অভিযান চালানোর সময় সনের আস্তানা থেকে ২৩ জন শিশুকে যৌনকার্যে লিপ্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় বলে জানায় কর্মকর্তারা। ব্রিটিশ ন্যাশনাল ক্রাইম এজেন্সী জানায়, যুক্তরাজ্য, আয়ারল্যান্ড, আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়া, জার্মানি, স্পেন, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, চেক রিপাবলিক, কানাডাসহ মোট ৩৮ টি রাষ্ট্র থেকে সাইটটির তিনশোর বেশি নিয়মিত ব্যবহারকারীকে আটক করেছে যৌথ টাস্কফোর্স।

এছাড়া পর্ণসাইটির জন্য কাজ করার দায়ে আটক করা হয়েছে বেশ কয়েকজনকে। এর মধ্যে ব্রিটিশ নাগরিক কাইল ফক্স নামে একজনকে ৫ বছরের এক বালককে ধর্ষণের অভিযোগে ২২ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ব্রিটিশ আদালত। সাইটে প্রকাশিত একটি ভিডিওতে ৩ বছরের এক মেয়ের সঙ্গে যৌনকার্যে লিপ্ত হওয়ার দৃশ্যেও তাকে দেখা গেছে। এছাড়া, ম্যাথু ফেল্ডার নামে আরেকজন ব্রিটিশ নাগরিককে ২৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। তার অপরাধ, সে ডার্ক সাইটে শিশু যৌন নিপীড়নের হাজারখানেক ছবি, ভিডিও এবং টিপস প্রচার করেছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য