দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, শেখ হাসিনা ক্যাসিনো বলেন, ফ্যাসিনো বলেন, কোন অপরাধীকেই রেহাই দিচ্ছেন না। যত বড় রথি-মহারথি হোক না কেন কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত— কোন অপরাধি ছাড় পাবে না। সকল অপরাধিকেই বিচারের আওতায় আনা হবে। তিনি বলেন, তিন তিনবার ক্ষমতায় থাকায় হাইব্রিড বা বিএনপি জামায়াত যাই বলি না কেন, কিছু অসাধু মানুষ ঢুকে পরেছে। এ সকল অসাধু মানুষদের খুঁজের বের করে বিতারিত করতে হবে।

১৬ অক্টোবর বুধবার দিনাজপুর শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ দিনাজপুর জেলা শাখার বর্ধিত সভায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, মির্জা ফখরুল সাহেবরা এখন অনেক বড় বড় কথা বলছেন, তারা ভুললেও এদেশের মানুষ ভুলেনি বিএনপি-জামায়াত তারেক জিয়াদের দুঃশাসন ও নির্যাতনের কথা। তারা হাত কেটেছে, পা কেটেছে, চোখ উপরে ফেলেছে, মায়ের সামনে মেয়েকে ধর্ষণ করেছে। নৌকায় ভোট দেয়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘর বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে।

আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের উপর নিপিড়ন নির্যাতন চালিয়ে এলাকা ছাড়া করেছিলো। ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর ৫২ দিনের মাথায় বিডিআর বিদ্রোহ ঘটিয়ে শেখ হাসিনা ও আওয়ামীলীগকে বিতারিত করতে চেয়েছিল। শেখ হাসিনার বিচক্ষনতার কারণে তাদের সকল ষড়যন্ত্র ভন্ডুল হয়েছে। তারা প্রতিনিয়ত ষড়যন্ত্র করছে, ষড়যন্ত্রমূলক কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছে। তাদের সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে দলের সকল ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাডঃ মোস্তাফিজুর রহমান এমপির সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন এমপি, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি। অন্যান্যদের মধ্যে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি, শিবলী সাদিক এমপি ও জাকিয়া তাবাসসুম জুঁই এমপি উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আজিজুল ইমাম চৌধুরী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য