দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বীরগঞ্জে সরকারী কর্মচারীকে হুমকি ও গন উপদ্রবের ও মাদক সেবনের দায়ে ৩জনের পৃথক পৃথক কারাদণ্ড প্রদান করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গণ উপদ্রবের কারণে ১ ব্যক্তিকে কারাদণ্ড ও মাদক সেবনের দায়ে ২জনের ছয়মাসে বিনাশ্রম কারাদণ্ড।

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের প্রসাদপাড়া গ্রামের আবদুল জলিল পুত্র বিএনপির সাবেক ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক শতগ্রাম ইউনিয়ন ভূমি অফিসে গিয়ে সরকরী কাজে বাঁধাদান ও ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও জীবননাশের হুমকি প্রদানকালে বীরগঞ্জ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাবের মোঃ সোয়াইব ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাকে আটক করে বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট মোঃ ইয়ামিন হোসেন এর কার্যালয়ে নিয়ে আসে।

এ সময় এলাকাবাসী আবু বকর সিদ্দিক এর বিরুদ্ধে ঝাড়বাড়ী বাজারে ভূমিহীনদের জমি দিবে বলে টাকা নেওয়া, রাস্তায় গনজমায়েত ও অস্থায়ী অফিস, বিদ্যালয়ে মিটিং, বাসায় ভুয়া তথ্য সেবা কেন্দ্র তৈরিসহ বিভিন্ন উপায়ে গণউপদ্রব মূলক কাজের কথা জানান।

এ ব্যাপারে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট জাবের মোঃ সোয়াইব ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে মোবাইল কোটে দন্ডবিধি, ১৮৬০ এর ১৮৯ ও ২৯১ ধারা মতে আবু বকর সিদ্দিকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।

এ সময় মোবাইল কোর্ট এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট বীরগঞ্জ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রট জাবের মোঃ সোয়াইব জানায়, এসব গণউপদ্রব কাজ না করার জন্য ইতঃপূর্বে সতর্কমূলক নোটিশও করা হলেও আবু বকর সিদ্দিক এলাকাবাসীকে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ভাবে উপদ্রব করে আসছিলো, তার বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর অসংক্ষ অভিযোগ রয়েছে।

অন্যদিকে মাদক সেমবের দায়ের বীরগঞ্জ পৌরসভার মাকড়াই গ্রামের মোঃ আবদুল বারিকের ছেলে মোঃ হাসিনুর রহমান (১৯)ও একই এলাকার মোঃ আবদুল কাদের ছেলে মোঃ রাহেল (১৯)কে পৃথক পৃথক ভাবে ছয়মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য