মোঃ জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ ‘মানবতার মা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার হত্যার বিচার দাবি’ তে নীলফামারীর সৈয়দপুর-কিশোরগঞ্জ রাজনৈতিক জেলা বিএনপি’র উদ্যোগে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৩ অক্টোবর রবিবার বিকালে শহরের শহীদ ডাঃ জিকরুল হক রোডস্থ জেলা বিএনপি’র কার্যালয়ের সামনে অনুষ্টিত এ প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জেলা পরিষদ সদস্য ও জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আলহাজ¦ আব্দুল গফুর সরকার।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব ও সৈয়দপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ শাহিন আকতার শাহিন, সৈয়দপুর উপজেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক ও কামারপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রেজাউল করিম লোকমান, সৈয়দপুর পৌর বিএনপি’র আহ্বায়ক শেখ বাবলু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এম এ পারভেজ লিটন প্রমুখ।

সমাবেশে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবকদলের নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করে। এসময় বক্তরা আওয়ামীলীগকে সন্ত্রাসী ও ভারতের প্রতি নতজানু সরকার বলে আখ্যায়িত করে। তারা বলেন, বিনা ভোটের সরকার বলেই বর্তমান শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামীলীগ ও সরকারের কাছে মানবতা বা গণতন্ত্রের কোন মূল্য নেই। তাই তারা বিনা দোষে মানবতার মা বিএনপি চেয়ারমপার্সন তিন বারের সফল প্রধানমন্ত্রী বেগম খাদেলা জিয়াকে কারান্তরিন করে রেখেছে। আর দূর্নীতির মাধ্যমে দেশের অর্থ নানাভাবে বিদেশে পাচার করছে। সে সাথে তাদের এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে সোচ্চার হলেই নিরাপরাধ জনগণকে নির্বিচারে হত্যা করছে।

যার প্রমান বিশ^জিৎ হত্যা থেকে শুরু করে সর্বশেষ আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ড। এভাবে তারা গণতন্ত্রকামী ও স্বাধীন চেতা বাঙ্গালীর উপর নির্যাতন করে বাক স্বাধীনতাসহ সকল প্রকার সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত শুধুই নয় পারতপক্ষে গণতন্তের গলা কেটে ফেলার অপচেষ্টায় মত্য হয়েছে। এথেকে পরিত্রাণের জন্য এখনই সকলকে সোচ্চার হতে হবে, রাজপথে নেমে আন্দোলন সংগ্রামে নিবেদিত হতে হবে। তা না হলে আগামীতে আবরারের মত অবস্থা আমাদের সকলের কপালে জুটবে। পাশাপাশি স্বাধীনতা হারিয়ে আবার আমাদেরকে পরাধীনতার শৃঙ্খলে নিমজ্জিত হতে হবে।

তারা অনতি বিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেন এবং আবরার হত্যার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক ও দ্রুত বিচার দাবি করেন। সে সাথে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের পিটিয়ে হত্যার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচার করতে হবে এবং পর্দার আড়ালে কারা আছে, কাদের ইন্ধনে বিশ^বিদ্যালয়, স্কুল-কলেজে শিক্ষার্থীদের নৃশংসভাবে হত্যা করা হচ্ছে তাদের খুঁজে বের করে বিচারের আওতায় আনতে হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য