রংপুর বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে শপথ নিতে এসে গ্রেফতার হওয়া বিএনপি-জামায়াতের ৫ জন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানের শপথ গ্রহনে আর কোন বাঁধা নেই। সোমবার বিকেলে রংপুরের মাননীয় -২য় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ হাইকোর্টের আদেশ বহাল, রিভিশন নিষ্পত্তি এবং নির্বাচিত ৫ জন উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানের শপথ গ্রহণের আদেশ প্রদান করা হয়। গত ২৭ মার্চ শপথ নিতে এসে পুলিশের হাতে গ্রেফতারের পর ওই দিনেই তাদের আইনজীবীরা প্যারোলে মুক্তি দিয়ে শপথ নেয়ার জন্য চিফ জুডীশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদন করলে আদালত ৩ এপ্রিলের মধ্যে জেল গেটে তাদের শপথ গ্রহণের জন্য বিভাগীয় কমিশনারের প্রতি আদেশ প্রদান করেন। এর প্রেক্ষিতে সরকার পক্ষ জেলা ও দায়রা জজ আদলতে আবেদন করলে আদালত নিম্ন আদালতের আদেশ ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত রাখেন। এই আদেশের বিরুদ্ধে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে হাইকোর্টে পৃথক দুইটি রিট আবেদন করা হয়। এই রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ৮ এপ্রিল মাননীয় বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী এবং হাবিবুল গনি সমন্বয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চ এক আদেশে প্রধান নির্বাচন কমিশনার, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং রংপুর বিভাগীয় কমিশনারকে যত দ্রুত সম্ভব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান এবং ভাইস চেয়াম্যানদের শপথ গ্রহণের আদেশ প্রদান করেন। একই আদেশে কেন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের শপথ করানো হয়নি আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে তার ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। গ্রেফতাকৃত চেয়ারম্যান-ভাইসচেয়ারম্যানরা হলেন, পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারি উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি সভাপতি আবদূর রহমান আবদার ও ভাইস চেয়ারম্যান ছাত্রদল সভাপতি শাহজাহান আলী, রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার চেয়ারম্যান ও জামাতের আমির গোলাম রব্বানি, ভাইস চেয়ারম্যান জামাত নেতা আবদুল বাসেত মারজান এবং বোদা উপজেলার চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা শফিক উল্লাহ শফি। বর্তমানে তাঁরা রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক রয়েছেন। এসময় সরকার পক্ষে পি পি আব্দুল মালেক এবং আবেদনকারীদের পক্ষে আলেফ উদ্দিন সরকার ও বায়েজীদ ওসমানীসহ উভয় পক্ষের বেশ কয়েক জন আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য