বিয়ের পর নতুন সংসার নিয়ে নানান ভালো লাগা, আবেগ কাজ করে মনের মধ্যে! সম্পূর্ণ নিজের বাড়ি, নিজের সংসার নিয়ে নিরুদ্বেগ, নিরুপদ্রব একটা জীবনের স্বপ্ন দেখেন সব মেয়ে। কিন্তু বাস্তবটা অনেক সময়ই আলাদা হয়। নতুন বাড়িতে গিয়ে অভাবনীয় কিছু সমস্যা দেখা দেয়, সেই সমস্যা সামলাতে গিয়ে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ে সম্পর্কটাই। চট করে সে সব সমস্যা নিজের মতো করে মিটিয়েও নেওয়া যায় না, কারণ প্রশ্ন ওঠে লোকে কী বলবে! কাজেই একটা মেনে নেওয়া-মানিয়ে নেওয়ার জায়গা তৈরি হয়, তা থেকে দেখা দেয় অসন্তোষ এবং তার জের পড়ে নবদম্পতির জীবনেও।

দেখে নিন বিয়ের পর নতুন শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে কী কী ঝামেলায় পড়তে হতে পারে। আগে থেকে জানা থাকলে মানসিক প্রস্তুতিও নিয়ে রাখতে পারবেন।

ঘর ভাগ করে নেওয়া

যদিও দাম্পত্য মানেই সব কিছু পরস্পরের সঙ্গে ভাগ করে নেওয়া, তবু দীর্ঘদিন একা রাজত্ব করার পর কারও সঙ্গে ঘর ভাগ করে নিতে হলে সমস্যা হতে পারে। আপনার স্বভাব, আপনার ঘুমের অভ্যেস, খাওয়াদাওয়ার সময়ের সঙ্গে অপরজনের রুটিন না মিললেই কিন্তু শুরু হবে গোলমাল। এ ছাড়া ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধির ব্যাপারটা তো রয়েছেই! বাথরুমের মেঝে ভেজা পেলে মাথায় আগুন জ্বলে যায়, এমন মানুষ কিন্তু আছেন! কাজেই এই জায়গাটায় আপস করার জন্য প্রস্তুত থাকুন!

স্বাধীনতা হীনতায়…

অবিবাহিত অবস্থায় যে স্বাধীনতা উপভোগ করেছেন, বিয়ের পরেও তাই করবেন, এমন ভাবনা বাতুলতা! এর পর থেকে বাড়ি ফিরতে রাত হলে স্বামীকে জানাতেই হবে, বাড়ির বাইরে রাত কাটাতে হলেও জানাতে হবে তাঁকে। এই বাধ্যবাধকতার জায়গা থেকে মনে অসন্তোষ দানা বাঁধা বিচিত্র নয়!

অর্থম অনর্থম

আপনি নিজে রোজগেরে গিন্নি হলেও বিয়ের পর কিন্তু আপনার টাকায় আপনার স্বামীরও অধিকার রয়েছে, যেমন আপনার রয়েছে ওঁর টাকায়। ফলে দু’জনের খরচের অভ্যেস আলাদা হলে তার কোপটা সরাসরি এই খাতেই পড়বে! ওঁর খরচ করা পোষায় না, এদিকে আপনি মাসের মাঝখানেই অর্ধেকের বেশি টাকা উড়িয়ে দেন, এমন হলে ঝগড়া অবশ্যম্ভাবী! তা ছাড়া কোন বিলের টাকা কে দেবেন, রোজের বাজার কোন টাকা থেকে হবে, এ সব নিয়েও মতের অমিল দেখা দিতে পারে।

শ্বশুর-শাশুড়ি

ভারতীয় তথা বাঙালি পরিবারে বিয়ের পর মেয়েরা শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গেই সাধারণত থাকতে শুরু করেন। নববিবাহিত বধূর পক্ষে সম্পূর্ণ নতুন কিছু মানুষের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া বেশ কঠিন। নতুন পরিবারের নিয়মকানুন, নতুন পরিবেশ, এ সবই সামলাতে হয় নতুন বউকে। কাজেই এই জায়গাটায় সাবধান হওয়ার দরকার রয়েছে বই কী!

যৌন সমস্যা

বিয়ের পর স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে একটা বড়ো জায়গা জুড়ে থাকে যৌনতা। তবে সেখানেও সমস্যা আসা অসম্ভব নয়। যৌনতায় দ্রুত একঘেয়েমি চলে এলে বা শারীরিক ঘনিষ্ঠতা থেকে তৃপ্তি না পেলে বিবাহিত জীবনের রং এক নিমেষে ফিকে হয়ে যেতে পারে। স্বামীর মনমেজাজ, অভ্যেস, নিজের ভালো লাগা-খারাপ লাগা, সব মিলিয়ে যৌন জীবন যদি সুখের না হয়, আপনার বিবাহিত জীবনের উপর প্রশ্নচিহ্ন পড়তে বেশি সময় লাগবে না। তাই আগে থেকে বুঝেশুনে নিন যতটা সম্ভব।

-ফেমিনা

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য