বিক্ষোভকালে মুখোশ পড়া নিষিদ্ধ হতে যাচ্ছে হংকংয়ে। বিক্ষোভকারীরা মুখোশ পড়ে যেন নিজেদের পরিচয় লুকাতে না পারে এজন্য এই সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে চীনের নিয়ন্ত্রণাধীন দেশটির সরকার। বৃহস্পতিবার দেশটির সংবাদ সূত্র জানায়, খুব শীঘ্রই তাদের সরকার এ সংক্রান্ত একটি আইন পাশ করতে যাচ্ছে।

গণতন্ত্রের দাবিতে ৪ মাস ধরে অচল চীনের অধীনস্থ ‘এক দেশ, দুই নীতি’র দেশটি। এ চারমাসে গণতন্ত্রপন্থিরা ব্যাপক জ্বালাও-পোড়াও চালিয়েছে দেশটিতে। বিক্ষোভকারীদের দমনে হংকং সরকারও কঠোর থেকে কঠোরতর হয়েছে। এই চার মাসে গ্রেপ্তার ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন হাজার হাজার বিক্ষোভকারী। ছাড় পাননি শিশু ও বৃদ্ধরাও।

হাজার হাজার গণতন্ত্রপন্থি এ সময় কালো মুখোশ পড়ে রাস্তায় নামে। তাদের শনাক্ত করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে পুলিশের। এদিকে ১ অক্টোবর চীনের ৭০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীকে কেন্দ্র করে দুর্দমনীয় হয়ে ওঠে গণতন্ত্রপন্থিরা। চারমাসের মধ্যে প্রথম সেইদিন পুলিশ গুলি ছোঁড়ে বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে। এ ঘটনায় প্রায় ১৫ জন গুলিবিদ্ধ হন। তাদের মধ্যে একজন ১৮ বছরের স্কুলছাত্রও ছিলেন। এ ঘটনায় আরও বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে আন্দোলনকারীরা। ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয় আন্তর্জাতিক মিডিয়ায়। বৃহস্পতিবারও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হন গণতন্ত্রপন্থিরা। তারা পুলিশের দিকে বেশ কিছু পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করেন এদিন।

পুলিশের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার হংকংয়ে কারফিউ জারির আবেদন করা হয় সরকারের কাছে। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, খুব শীঘ্রই তারা মুখোশ নিষিদ্ধ করার জন্য আইন পাস করবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য