সেই বিশেষ মানুষটির সঙ্গে মানসিকভাবে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে উঠেছে বেশ কিছু কাল যাবত, এবং এবার আপনারা দু’জনেই চাইছেন সম্পর্কটা শারীরিক স্তরে নিয়ে যেতে। শারীরিক সম্পর্ক গড়ে ওঠার অর্থ নিশ্চিতভাবেই প্রেমটা আরও গাঢ় হওয়া। কিন্তু এমন কি হতে পারে, উনি চাইছেন শারীরিক ঘনিষ্ঠতা কিন্তু আপনি ঠিক নিশ্চিত নন? কী করে বুঝবেন পছন্দের পুরুষটির সঙ্গে সম্পর্কটা আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে যেতে আপনি তৈরি? নিজের মনকে জিজ্ঞেস করে বুঝে নিন উত্তরটা!

আত্মবিশ্বাসের জোর
বিশেষ মানুষটির সঙ্গে শারীরিক ঘনিষ্ঠতা স্থাপনের কথা ভাবলেই কি আপনার টেনশন হয়? নাকি আত্মবিশ্বাসী মনে হয় নিজেকে? শারীরিক সম্পর্কের সঙ্গে যে আবেগ জড়িয়ে থাকে, তার দায়িত্ব নিতে আপনি পারবেন তো? যদি এ সব প্রশ্ন নিয়ে আপনার মনে বিন্দুমাত্রও সংশয় না থেকে থাকে, তা হলে এগিয়ে যান।

ইনিই কি তিনি?
যেমন মনের মানুষ পাওয়ার কথা ভেবেছিলেন, আপনার সঙ্গী কি ঠিক তেমনই? আপনার ব্যাপারে ওঁর মনোভাবটাও কি একইরকম? ওঁর সান্নিধ্যে কি আপনার নিজেকে নিরাপদ আর নিশ্চিন্ত মনে হয়? উত্তরগুলো যদি ‘হ্যাঁ’ হয়, তা হলে আর দুর্ভাবনা করবেন না।

যৌন রোগ সম্পর্কে সচেতনতা
নিরাপদ যৌনতা বা যৌনরোগ সম্পর্কে আপনারা কি খোলাখুলি কথা বলতে পারেন? যদি কোনও অস্বস্তি কাজ করে বা আপনারা কেউই এ ব্যাপারে কথা বলতে প্রস্তুত না হন, তা হলে এক্ষুনি শারীরিক সম্পর্কে না জড়ানোই ভালো।

নিজের কাছে সৎ থাকুন
আপনি নিজে মানসিকভাবে সম্পূর্ণ প্রস্তুত হলে তবেই শারীরিক সম্পর্ককে হ্যাঁ বলুন। সঙ্গী বারবার বলছেন বলেই রাজি হবেন না। নিজের মন থেকে পূর্ণ সায় পেলে তবেই এগোন।
-ফেমিনা

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য