মার্কিন নির্মিত পঞ্চম প্রজন্মের এফ-৩৫ স্টিলথ জঙ্গিবিমান এখনো নানা রকমের প্রযুক্তিগত সংকটের মুখে রয়েছে। কাগজে কলমে বিমান বলা হলেও এ বিমান জার্মানির রাডার ব্যবস্থাকে ফাঁকি দিতে পারে নি।

এফ-৩৫ বিমান নির্মাণের জন্য আমেরিকা কয়েক দশক সময় ব্যয় করেছে এবং এর পেছনে বাজেট ছিল এক ট্রিলিয়ন ডলার। এ বিমান বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কাছে বিক্রি করা হলেও এখনো তা প্রযুক্তিগত সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারে নি।

জার্মান রাডার নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান হেনসোলদ দাবি করেছে, তাদের রাডার আমেরিকার দুটি স্টিলথ এফ-৩৫ বিমান শণাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে। কোম্পানিটি বলছে, প্রায় ১০০ মাইল দূর থেকে তারা তাদের রাডার ব্যবস্থার মাধ্যমে মার্কিন দুটি বিমানকে শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে।

হেনসোলদ বলছে, তারা যে রাডারের মাধ্যমে মার্কিন এফ-৩৫ জনকে শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে তাতে অত্যন্ত উন্নতমানের সেন্সর ও প্রসেসর রয়েছে। ২০১৮ সালের শেষ দিকে বার্লিনে বিমান প্রদর্শনী হয়। ওই প্রদর্শনীতে অংশ নেয় মার্কিন এফ-৩৫ বিমান। প্রদর্শনীতে অংশ নেয়ার পর দেশে ফেরার সময় যখন জার্মানি কোম্পানি জানতে পারে যে বিমান দুটি ওড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে তখন তাদের রাডার ব্যবস্থা সক্রিয় করে এবং তাতে তা ধরা পড়ে।

-পার্সটুডে

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য