দুই পরমাণু শক্তিধর দেশের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হলে তার ফল পুরো বিশ্বকে ভুগতে হবে বলে সতর্ক করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে শুক্রবার দেওয়া ইমরানের ভাষণে বারবারই ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের চলমান সংকটের বিষয় উঠে এসেছে।

এনডিটিভি জানায়, এদিন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভাষণের কিছুক্ষণ পরই ভাষণ দেন ইমরান।

তিনি বলেন, “এটা (কাশ্মীর সংকট সামাধান) জাতিসংঘের জন্য একটি পরীক্ষা।”

গত ৫ অগাস্ট ভারত সরকার জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে রাজ্যটিকে কেন্দ্রশাসিত দুইটি আলাদা অঞ্চলে ভাগ করার ঘোষণা দেয়।

বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ঘোষণার একদিন আগেই পুরো রাজ্য নিরাপত্তার চাদরে মুড়িয়ে ফেলে মোদী সরকার। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়া আটকাকে কারফিউ জারিসহ বেশির ভাগ কাশ্মীরি নেতাকে গৃহবন্দি বা কারাবন্দি করে রাখা হয়েছে।

কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর প্রতিবেশী পাকিস্তান এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। তারা ভারতের সঙ্গে সব ধরণের বাণিজ্য সম্পর্কও ছিন্ন করেছে।

জাতিসংঘে ইমরান বলেন, “যদি যুদ্ধ শুরু হয়েই যায় তবে যেকোনো কিছুই ঘটতে পারে। কিন্তু ভাবুন, একটি দেশকে যখন তার চেয়ে সাত গুণ বড় প্রতিবেশীর সঙ্গে যুদ্ধ নিয়ে বাছতে হয়… আত্মসমর্পণ কর অথবা মৃত্যুর আগ পর্যন্ত নিজের স্বাধীনতার জন্য লড়াই কর। আমরা কী করবো? আমি নিজেকেও একই প্রশ্ন করেছি। আমার বিশ্বাস এক ঈশ্বর ছাড়া আর কেউ নেই এবং আমরা লড়াই করবো।

“সেক্ষেত্রে যখন একটি পরমাণু অস্ত্র শক্তিধর দেশ শেষ পর্যন্ত লড়াই করবে, তখন যুদ্ধের ফলাফল সীমান্ত ছাড়িয়ে পুরো বিশ্বকেই ভুগতে হবে।”

পাকিস্তানে কোনো জঙ্গি সংগঠনের অস্তিত্ব নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য