আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে মেসার্স রাজা পেপার এন্ড বোর্ড মিলের তরল বর্জ্য পরিশোধনাগার না থাকা এবং কারখানার ভেতরে বিভিন্ন শ্রেণির বিক্রয় নিষিদ্ধ বিপুল পরিমাণ সরকারি পাঠ্য পুস্তক পাওয়ায় তার উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধসহ তা সিলগালা করে দিয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর।

অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (উপসচিব) মোঃ আশরাফুজ্জামান এবং গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজির হোসেন উপজেলার ফাঁসিতলা এলাকায় অবস্থিত রাজা পেপার এন্ড বোর্ড মিল পরিদর্শনে যান।

এসময় মিলের তরল বর্জ্য পরিশোধনাগার না থাকার বিষয়টি তারা নিশ্চিত হন। এছাড়া কারখানার ভেতরে বিপুল পরিমাণ সরকারী বিক্রয় নিষিদ্ধ ৬ষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির নতুন পাঠ্য বই পাওয়া যায়।

দীর্ঘদিন যাবত রাজা পেপার এন্ড বোর্ড মিলের উৎপাদনে সৃস্ট কেমিক্যাল মিশ্রিত তরল বর্জ্য পরিশোধন ব্যতিত পার্শ্ববর্তী ইছামতি গজারিয়া খালে ফেলা হচ্ছিল। এতে আশেপাশের বহু গ্রামের মানুষের জন্য উপকারী ইছামতি গজারিয়া খালটি চরমভাবে দুষিত হয়ে পড়ে।

সেখানকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও জনবসতি এলাকার মানুষ পরিবেশ দূষিত হওয়ায় বিভিন্ন সময়ে নানাভাবে আন্দোলন করে আসছিল। এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (উপসচিব) আশরাফুজ্জামান এক লিখিত পত্রে ‘রাজা পেপার এন্ড বোর্ড মিল’ এর উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধের আদেশ দেন।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজির হোসেন ওই পেপার এন্ড বোর্ড মিল সিলগালা করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য