আমন খেতে পোকামাকড়ের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষায় কীটনাশকের ব্যবহারের পরিবর্তে লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার কৃষকদের আলোক ফাঁদ ব্যবহারে উৎসাহিত করছে কৃষি বিভাগ। আলোক ফাঁদ ব্যবহারে ক্ষতিকর শত্রু পোকা ও উপকারী বন্ধু পোকাও নির্ণয় করা হচ্ছে।

গত এক সপ্তাহ ধরে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে কৃষকদের রোপা আমন ধান খেতে আলোক ফাঁদ স্থাপন করেছে কৃষি বিভাগ। এ সময় অর্ধ শতাধিক কৃষক আলোক ফাঁদ প্রদর্শনী করেন।

এসময় উপস্থিত কৃষকরা জানান, আলোক ফাঁদের মাধ্যমে ক্ষতিকর পোকা নিধনে কোনো খরচ নেই এবং কীটনাশক ব্যবহার না করায় ক্ষেতেরও কোনো ক্ষতি হবে না। এজন্য তাদের ধান ক্ষেতেও তারা আলোক ফাঁদ ব্যবহার করবে বলে জানায়।

উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা এমএম জামান শাহীন জানান, উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের সংশ্লিষ্ট উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের মাধ্যমে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে প্রতিদিনই আলোক ফাঁদ স্থাপন করা হচ্ছে। তিনি আরো জানান, এতে করে কৃষকরা লাভবান হচ্ছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ আলীনুর রহমান জানান, এবছর উপজেলায় ১৩ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধান চাষ করা হয়েছে। প্রাকৃতিক কোনো দুর্যোগ না হলে বাম্পার ফলনের আশা করছি। পোকামাকড়ের ক্ষতির হাত থেকে ফসল রক্ষায় পোকা দমনে কীটনাশকের ব্যবহার কমাতে পরিবেশবান্ধব আলোক ফাঁদ স্থাপনে কৃষকদের উদ্বুদ্ধকরণে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য