দিনাজপুর সংবাদাতাঃ নবাবগঞ্জের ঐতিহাসিক আশুরার বিলে ঘুরতে গিয়ে নৌকাডুবিতে তিন শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীর অকাল মৃত্যুতে রোববার কালো ব্যাচ ধারণ এবং এক দিনের শোক পালন করেন হাবিপ্রবি কর্তৃপক্ষ।

রোববার সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ রাসেল হলের মাঠে নিহত শিক্ষার্থী রাফিদ আহমেদ রাহাত ও আশফাক আহমেদ দিপ্ত’র নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।
জানাজায় উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেমসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল স্তরের শিক্ষক, কর্মকর্তা, শিক্ষার্থী ও কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। এ সময় সহপাঠিরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।
এদিকে জানাযা শেষে তাদের এলাকায় আরেকবার জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। পরে তাদের কবরাস্থানে দাফন কার্য সমাধা করা হয়।

নিহতদের মধ্যে দুজন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) শিক্ষার্থী। তারা হলেন মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের মেধাবী ছাত্র রাফিদ আহমেদ রাহাত এবং সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মেধাবী ছাত্র আশফাক আহমেদ দিপ্ত। মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের লেভেল-৩, সেমিস্টার-১ (১৭ তম ব্যাচ) এর মেধাবী ছাত্র রাফিদ আহমেদ রাহাতের বাসা দিনাজপুর সদরের বড় গুড়গোলা এবং সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের লেভেল-৪, সেমিস্টার-১ (১৬ তম ব্যাচ) এর মেধাবী ছাত্র আশফাক আহমেদ দিপ্ত’র বাসা দিনাজপুর সদরের কালিতলা।
দুর্ঘটনায় নিহত ৩য় জন হলেন দিনাজপুর মহিলা কলেজের ছাত্রী নিশাত ফারিয়া মৌমি।

তাদের অকাল মৃত্যুতে হাবিপ্রবির উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম শনিবার রাতে আহত নিহত সকল শিক্ষার্থীদের বাসায় যেয়ে তাদের শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেন। আশুরার বিলে ভ্রমণের ক্ষেত্রে নবাবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনকে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আহবান জানান তিনি।

উল্লেখ্য, শনিবার বিকালে দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) ৪ ছাত্র ও দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজের এক ছাত্রীসহ ৫জন নবাবগঞ্জে জাতীয় উদ্যান আশুড়ার বিলে ঘুরতে যায়। তারা কাঠের তৈরি ব্রিজ ও শালবন ঘুরে দেখার পর নৌকায় চড়ে বিল ঘুরে দেখছিলেন। বিলের মাঝখানে গিয়ে হঠাৎ নৌকাটি ডুবে যায়। এতে এক ছাত্রীসহ ৩ ছাত্রকে মৃত: ঘোষণা করেন এবং দুইজন আহত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য