আলবেনিয়ায় ৫ দশমিক ৬ মাত্রার একটি ভূমিকম্প ও পরে কিছুটা দুর্বল একটি পরাঘাতে কয়েকটি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পাশাপাশি প্রায় ৬৮ জন আহত হয়েছেন।

শনিবারের এ ভূমিকম্পটি গত ৩০ বছরের মধ্যে আলবেনিয়ায় হওয়া সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প ছিল বলে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওগের্তা মানাসটিরলিউ জানিয়েছেন, রাজধানী তিরানা ও বন্দর শহর দুরেসে আহত ৬৮ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আহতদের অধিকাংশই আতঙ্কে তাড়াহুড়া করে বাড়ি থেকে বের হতে গিয়ে আঘাত পেয়েছেন।

এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওল্টা জাস্কা জানিয়েছেন, তিরানায় ৪৮টি বাসা ও তিনটি অ্যাপার্টমেন্টে ফাটল ধরেছে এবং দুরেস অঞ্চলে ৪২টি বাড়ি ও চারটি অ্যাপার্টমেন্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

“সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি,” যোগ করেছেন তিনি। অন্যান্য এলাকায় আরও ২০টি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভূমিকম্পে দেশটির ফিয়ের অঞ্চলের তেলকূপগুলোতে কোনো ক্ষতি হয়নি বলে জানিয়েছেন জাস্কা।

ভূমিকম্পটি ২০ সেকেন্ড স্থায়ী হয় এবং এ সময় তিরানার বাসিন্দারা ঘরবাড়ি ছেড়ে রাস্তায় নেমে আসেন, অনেকে পার্কে যেয়ে আশ্রয় নেন।

“আমাদের সব প্রতিবেশী চিৎকার করতে করতে বাইরে বের হয়ে আসে। খোদাকে ধন্যবাদ এটি বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি, প্রায় ২০ সেকেন্ড। ১০ তলার ওপরে এটি দুঃস্বপ্নের মতো মনে হচ্ছিল। এর চেয়ে শক্তিশালী কোনো ভূমিকম্পের কথা আমি মনে করতে পারছি না,” রয়টার্সকে বলেছেন তিরানার ৬৭ বছ বয়সী পেনশনভোগী বাসিন্দা আজিম।

যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা প্রাথমিকভাবে ভূমিকম্পটি ৫ দশমিক ৬ মাত্রার ছিল বলে জানিয়েছে। অপরদিকে আলবেনিয়ার জিওসায়েন্স ইনিস্টিটিউটের প্রতিবেদনে ভূমিকম্পটি ৫ দশমিক ৮ মাত্রার ছিল এবং এর ১১ মিনিট পর ৫ দশমিক ৩ মাত্রার পরাঘাত হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য