মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাও: ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জে ট্রাক ট্যাংকলরী,কাভার্ড ভ্যান ও পিক আপ শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনী কার্যক্রম চলা কালে গোপনে মনগড়া সেলেকশন কমিটি বাতিল করে তালিকাভুক্ত সংখ্যাগরিষ্ট শ্রমিকরা নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে ভোটের দাবীতে লাগানো পোষ্টার ছিড়ে ফেলার বিচার দাবীতে ১৭ সেপ্টেম্বর পীরগঞ্জ ইউএনও’র কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা।

জানা যায়, চলতি বৎসরে পীরগঞ্জ শ্রমকল্যান উপ-পরিষদের কমিটির মেয়াদ শেষ হলে পরবর্তী নির্বাচনের মাধ্যমে কার্যকরী কমিটি গঠনের লক্ষ্যে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত মতে নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু হয়।

প্রার্থীরা দিনরাত ভোটের জন্য ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট ভিক্ষে করার এক পর্যায়ে আকষ্মিকভাবে মেয়াদ উত্তীর্ন কমিটির সভাপতি ও তার কয়েকজন সহযোগীর গোপন তৎপরতায় রাতারাতি একটি গোপন কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি ঘোষনার আগেই সেলেকশন মানিনা ইলেকশন চাই স্লোগান নিয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা।

প্রায় প্রতিদিনই বিচ্ছিন্নভাবে মিছিল মিটিং অব্যাহত থাকার পর ভোটের দাবীতে ১৭ সেপ্টেম্বর পোষ্টারে ছেয়ে যায় শহরের অলিগলি। সেলেকশন কমিটির কতিপয় নেতা পেশি শক্তির প্রভাবে পোষ্টারগুলি ছিড়ে ফেলতে থাকলে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে পরিস্থতি নিয়ন্ত্রনে এলে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে এ ঘটনার সুষ্টু বিচার চেয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেশ করেন। উপজেলার সবোচ্চ সংখ্যক সদস্যের এই সংগঠনে ভোটের জমজমাট ইমেজ তৈরী হওয়ার পর হঠাৎ করে রাতারাতি মনগড়া কমিটির খবরে সংগঠনের সদস্যরা বিভক্ত হয়ে নিজেদের মধ্যে বিবাদে জড়িয়ে পড়ছে।

বিষয়টির শান্তিপূর্ন সমাধান না হলে যেকোন মুহুত্বে এটি রক্ষক্ষয়ী সংঘর্ষে রুপ নিতে পারে বলে সচেতন মহলের ধারনা। তাই জরুরী ভিত্তিতে নির্বাচনের দিন তারিখ ঘোষনা করে নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব প্রতিষ্টা করা এখন সময়ের দাবীতে পরিনত হয়েছে।

এ বিষয়ে জেলা কমিটি ও কেন্দ্রীয় কমিটির আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন শ্রমিকরা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য