স্কুল জীবনের একটি ছবি গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর ক্ষমা চেয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনি বলেছেন, দেড় যুগ আগে স্কুলে ‘আরব্য রজনী থিমের’ এক অনুষ্ঠানে আলাদীন সাজতে গিয়েই তিনি ওই মেকআপ নিয়েছিলেন। ছবিটি যে ‘বর্ণবাদী’ তা স্বীকার করে নিয়ে কানাডার প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এরকমটা করা উচিত হয়নি বলে বুঝতে পেরেছেন তিনি।

আরেকবার হাই স্কুলের এক ট্যালেন্ট শো-তেও এ ধরনের মেকআপ নিয়েছিলেন বলে স্বীকার করেছেন ট্রুডো। ২০০১ সালের ওই ছবিটি চলতি সপ্তাহে টাইম ম্যাগাজিনে ছাপা হওয়ার পর থেকে কানাডার রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে।

ছবিটি প্রকাশিত হওয়ার পরপরই ট্রুডো বলেছেন, ওই মেকআপ নেয়ার আগে তার বিষয়গুলো সম্পর্কে আরও ভালো করে জানা উচিত ছিল। স্কুলজীবনে ট্রুডোর এমন কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে ন্যাশনাল কাউন্সিল অব কানাডিয়ান মুসলিমস।

সংগঠনটির নির্বাহী পরিচালক মুস্তাফা ফারুক বলেছেন,“প্রধানমন্ত্রীকে বাদামি/কালো মেকআপে দেখা সত্যিই দুঃখজনক। এ ধরনের মেকআপ নিন্দনীয়; এটি বর্ণবাদ ও প্রাচ্যপুরানের ইতিহাস ফিরিয়ে আনে, যা একেবারেই অগ্রহণযোগ্য।”

আসন্ন নির্বাচনে কনজারভেটিভ পার্টির সঙ্গে ট্রুডোর লিবারেল পার্টির হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে বলে বিভিন্ন জনমত জরিপে আভাস মিলেছে। আর এ অবস্থার মধ্যেই বর্ণবাদী ছবিটি প্রকাশিত হওয়ায় লিবারেল পার্টিতে উদ্বেগ বেড়েছে। আগামী ২১ অক্টোবর কানাডায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

-পার্সটুডে

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য