কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে পুকুরে মাছ ধরা নিয়ে সৃষ্ট ঝগড়ার জেরে আপন ভাতিজার লাঠির আঘাতে ওহাব খান নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ভাতিজা মোস্তফা কামাল ও তার পিতা মো. আলীকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর আড়াইটার দিকে উপজেলার নেওয়াশি ইউনিয়নের শুকাতি বুটেরতল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নাগেশ্বরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন কবীর এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, নিজেদের পারিবারিক পুকুরে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে দুই ভাই ওহাব খান ও মো. আলীর মধ্যে ঝগড়া হয়।

এ সময় তাদের বিবাদে অংশ নেয় মো. আলীর ছেলে মোস্তফা কামালসহ উভয় পক্ষের লোকজন। ঝগড়ার এক পর্যায়ে মোস্তফা কামালের লাঠির আঘাতে চাচা ওহাব খান মারাত্মক আহত হন।

এ সময় উভয় পক্ষের সংঘর্ষে আরও ছয় জনের মতো আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় ওহাব খানকে নাগেশ্বরী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সংঘর্ষের ঘটনায় আহতদের চার জনকে নাগেশ্বরী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযুক্ত ভাতিজা মোস্তফা কামাল ও তার পিতা মো. আলীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

নাগেশ্বরী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডা. মো. আবু বকর সিদ্দিক জানান, ওহাব খানকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে। তার মাথা ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আহত আরও চার জনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ওসি রওশন কবীর জানান, এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে। আমরা তাৎক্ষণিকভাবে দুই জনকে আটক করেছি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য