মো: জাকির হোসেন সৈয়দপুর নীলফামারীঃ অর্থাভাবে ক্যান্সার আক্রান্ত যুবক ছেলের চিকিৎসা করাতে না পারায় দুঃখ-কষ্টে নিমজ্জিত এক হতাশাগ্রস্থ মা বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। নিহত গৃহবধুর নাম সাবিনা বেগম (৪৫)। ১ সেপ্টেম্বর রবিবার ভোরে ঘটনাটি ঘটেছে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের খামাতপাড়া এলাকায়।

জানা যায়, খামাতপাড়ার দরিদ্র মনোয়ার হোসেনের ৩ ছেলে ২ মেয়ে। তাদের মধ্যে মেঝ ছেলে সবুজ (২৫) হঠাৎ করে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন থেকে অসুস্থ হয়ে শয্যাশায়ী। অর্থাভাবে তার চিকিৎসা করাতে পারছেন না। এ নিয়ে স্ত্রী সাবিনা বেগমের সাথে প্রায়ই বাক-বিতন্ডাসহ মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়। এতে চরমভাবে দুখ-কষ্টে দিনাতিপাত করছিল অসহায় পরিবারটি। ছেলের চিকিৎসার জন্য যে টুকু সহায় সম্বল ছিল তা বিক্রি করে শেষ হয়েছে।

এরপর সমাজের বিত্তশালীদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোন কুল কিনারা না পেয়ে সাবিনা বেগম হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েন। বিগত কয়েকদিন যাবত সে ঠিকমত খাওয়া দাওয়া বা কাজ কর্ম করতে পারছিল না। এমতাবস্থায় গত ৩১ আগস্ট দিবাগত রাত আনুমানিক ৩ টার দিকে সে বিষপান করে। ঘুমন্ত অবস্থায় বাড়ির লোকজন তার গোঙ্গানীর আওয়াজ পেয়ে দ্রুত তাকে উদ্ধার করে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে নেয়।

সেখানে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় দায়িত্বরত চিকিৎসক তাৎক্ষনিক তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। রংপুর নেয়ার পথেই সাবিনা বেগমের মৃত্যু হয়। পরে পরিবারের লোকজন তাকে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে দাফন কাফনের প্রস্তুতিকালে খবর পেয়ে সৈয়দপুর থানা পুলিশ লাশ আটক করে থানায় নিয়ে আসে এবং ময়নাতদন্তের জন্য নীলফামারী জেলা মর্গে প্রেরণ করে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য