দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ২৮ আগষ্ট বুধবার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল দিনাজপুর এর আয়োজনে শহীদ আব্দুল জব্বার মিলনায়তনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, জাতীয় এইডস/এসটিডি কন্ট্রোল, মহাখালী ঢাকার সহযোগিতায় এইচআইভি টেস্টিং এবং কাউন্সিলিং (এইচটিসি) সেন্টারের কার্যক্রম বিষয়ে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠত হয়।

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল দিনাজপুরের তত্বাবধায়ক ডাঃ মোঃ আহাদ আলী’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর মহাখালি ঢাকা এমবিডিসি ও লাইন ডাইরেক্টর, টিবি, ল্যাপ্রসি ও এসটিডি/এইডস প্রোগ্রামের পরিচালক প্রফেসর ডাঃ মোঃ সামিউল ইসলাম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর মহাখালি ঢাকা’র এনএএসসি’র পরিচালক ডাঃ মোঃ আমিনুল ইসলাম মিঞা। আলোচ্চক হিসেবে আলোচনা করেন এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ দিনাজপুরের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ডাঃ মোঃ আব্দুস সালাম, দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আবদুল কুদ্দুছ, বিএমএ দিনাজপুর শাখার সভাপতি ডাঃ এস.এম ওয়ারেশ আলী সরকার।

বিষয় ভিত্তিক উপস্থাপনা করেন সেফ দ্যা চিলড্রেন এর সিনিয়র ম্যানেজার ডাঃ মোঃ শহিদুল ইসলাম। বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে ২০১৮ সাল পর্যন্ত এইচআইভি এইডস রোগী সনাক্ত হয়েছে ৬ হাজার ৪শ ৫৫ জন। এর মধ্যে শুধু দিনাজপুরে সনাক্ত হয়েছে ৩৩ জন। সীমান্ত এলাকা হিসেবে দিনাজপুর বর্তমান এইচআইভি এইডস রোগে ঝুঁকিপূর্ণ জেলা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।

ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর এইচআইভি এইডস চিহ্নিত করে চিকিৎসা সেবার আওতায় আনতে হবে। বিশেষ করে যৌন কর্মী, হিজরা, সুচের মাধ্যমে নেশা আসক্ত মাদক ব্যক্তি ও সমকামীদের এইচআইভি টেস্টিং ও কাউন্সিলিং এর মাধ্যমে সচেতন করতে হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য