দিনাজপুর সংবাদাদাঃ প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন, পুরস্কার বিতরণ ও আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে দিনাজপুর সরকারি কলেজ।

দিবসটি উদযাপন উপলক্ষ্যে ২৮ আগস্ট ২০১৯ বুধবার সকালে কলেজের মিলনায়তনে কলেজের জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির আয়োজনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সৈয়দ মোহাম্মদ হোসেন। মুল আলোচকের বক্তব্য রাখেন দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মাসুদুল হক।

আলোচনা সভায় জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির আহবায়ক প্রফেসর আব্দুল জলিল আহমেদ এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আব্দুল বাছেদ মন্ডল, কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারন সম্পাদক মো. দাইমুল ইসলাম।

বক্তারা বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকচক্র বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তাঁর স্বপ্ন ও আদর্শের মৃত্যু ঘটাতে পারেনি। বাঙালি জাতির হৃদয়ে এখনও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বিদ্যামান। কারণ বঙ্গবন্ধু দরিদ্র, নির্যাতিত ও বঞ্চিত মানুষের মুক্তির কথা ভাবতেন। তিনি পাকিস্তান আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলেন এই ভেবে যে এই নতুন রাষ্ট্রে দরিদ্র মুসলমান কৃষক জমিদার শ্রেণির নির্যাতন থেকে মুক্তি পাবে।

তিনি সব সময় স্বাধীনতার আন্দোলনকে শুধু ঔপনিবেশিক শাসন থেকে স্বাধীন হওয়ার সংগ্রাম হিসেবে দেখেননি, তিনি এটাকে দেখেছেন নির্যাতিত দরিদ্র মানুষের অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক মুক্তির সংগ্রাম হিসেবে। তাঁর ধ্যানধারণার সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে ছিল গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থা ও সুষম সমাজব্যবস্থার চিন্তা। বাঙালির জাতিসত্তার স্বীকৃতির আন্দোলনকে তিনি সব সময় দেখেছেন একটি গণতান্ত্রিক আন্দোলন হিসেবে, শোষিত-বঞ্চিত মানুষের মুক্তির আন্দোলন হিসেবে। তাই ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ভাষনে তিনি একই সঙ্গে ডাক দেন স্বাধীনতা ও মুক্তির সংগ্রামের জন্য। বক্তারা আরো বলেন, আসুন, আমরা জাতির পিতা হারানোর শোককে শক্তিতে পরিণত করি। তার ত্যাগ এবং তিতিক্ষার দীর্ঘ সংগ্রামী জীবনাদর্শ ধারণ করে সবাই মিলে একটি অসাম্প্রদায়িক, ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলি। প্রতিষ্ঠা করি জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ। জাতীয় শোক দিবসে এই হোক আমাদের অঙ্গীকার।

আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইংরেজী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর মো. ইছাহাক আলী, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সঞ্জীব কুমার সাহা, অফিস সহকারী এনামুল হক প্রমুখ। আলোচনা সভায় কলেজের সকল বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভাটির সঞ্চালনা করেন কলেজের ইতিহাস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. শরীফুল ইসলাম ও ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক জিনাত রেহানা।

এরপর শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

এছাড়াও জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির আয়োজনে ১৫ আগস্ট কলেজ বিভিন্ন অনুষ্ঠান কর্মসূচী পালন করে। এর মধ্যে সুর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে উত্তোলন ও কালো ব্যাজ ধারন। সকাল ৯ টায় শোকর‌্যালী শেষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য