দিনাজপুরের বাসিন্দা এসআই’র কুড়িগ্রাম কর্মস্থলে সার্ভিস পিস্তল দিয়ে নিজের মাথায় গুলি করে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ২৮ আগস্ট বুধবার দুপুরে এসআই’র বাসায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত সে‌লিম জাহা‌ঙ্গীরের পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে সদর থানার সদর ফাঁড়ির এএসআই কামরুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সে‌লিম জাহা‌ঙ্গীর (৩৫) সদর থানার সদর ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি দিনাজপুরের ফুলবাড়িতে। বাবার নাম আবুল কালাম আজাদ। জাহা‌ঙ্গীর বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান। তিনি ২০০৭ সালে এসআই হিসেবে চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন।

এএসআই কামরুজ্জামান জানান, ‘আজ বুধবার (২৭ আগস্ট) দুপুরে কুড়িগ্রাম সদর থানাধীন হাটিরপাড় এলাকায় নিজের বাসায় বসে পিস্তল পরিষ্কার করছিলেন জাহা‌ঙ্গীর। তার ছেলে জানিয়েছে, এ সময় হঠাৎ মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করেন তিনি। জাহা‌ঙ্গীরের ছেলে (৮) ছাড়াও এ সময় বাসায় ছিলেন তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী, বাবা ও মা। তবে প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যার কোনও কারণ জানা যায়নি।’

বাসার গৃহকর্মী নূরজাহান পুলিশকে জানিয়েছেন, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সুসম্পর্ক ছিল এবং কোনও কলহ তার চোখে পড়েনি। আর ঘটনার সময় জাহাঙ্গীর ওই ঘরে একা ছিলেন।

তবে পুলিশের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, জাহাঙ্গির মাদকাসক্ত ছিলেন বলে তারা খবর পেয়েছেন। মাদকের নেশা ছাড়ানোর জন্য তার চিকিৎসাও চলছিল। এ নিয়ে বাবা-মায়ের সঙ্গে তার মনোমালিন্য ছিল। হয়তো জেদের বসে তিনি আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. শাহীনুর রহমান সর্দার জানান, লাশ দেখে মনে হচ্ছে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়েই গুলি করা হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে।

কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার মুহিবুল ইসলাম খান জানান, ঘটনা জানার জন্য তদন্ত শুরু হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য