কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে গরুর পঁচে যাওয়া মাংস বিক্রয়ের অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে পৌঁছলে মাংস বিক্রেতা (কসাই) শফিকুল ইসলাম ও তাজুল ইসলাম পালিয়ে যায়। পরে ইউএনও ও ভারপ্রাপ্ত নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক প্রায় এক মন পঁচা মাংস জব্দ করে হাট ইজারাদারকে মাটিতে পুতে ফেলার নির্দেশ দেন।

ইউএনও মাছুমা আরেফিন ওই মাংস বিক্রেতার বিরুদ্ধে খরিবাড়ী হাটবাজার ইজারাদারকে ফুলবাড়ী থানায় একটি নিয়মিত মামলা দায়েরের নির্দেশনা প্রদান করেন। জানা গেছে, সোমবার উপজেলার খরিবাড়ী বাজারে স্থানীয় ভাঙ্গামোর ইউনিয়নের মৃত তৈয়ব আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম (২৭) ও শরিয়তুল্লাহের ছেলে তাজুল ইসলাম (৩২) পঁচা মাংস বিক্রয় শুরু করেন।

এ খবর পেয়ে উপজেলা ভারপ্রাপ্ত স্যানেটারী ইন্সপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক নজরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে সত্যতা নিশ্চিত করে বিষয়টি ইউএনওকে জানান। ইউএনও সেখানে উপস্থিত হয়ে এ অভিযান চালান। এ সময় অবস্থা বেগতিক দেখে মাংস বিক্রেতা সটকে পড়েন।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা ইউএনও মোছা. মাছুমা আরেফিন জানান, মাংস বিক্রেতার বিরুদ্ধে একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করা হবে। ইত্তেফাক/কেআই

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য