আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাটঃ লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় বিয়ের দাবীতে এক স্কুল ছাত্রী ৬ দিন ধরে প্রেমিকার বাড়িতে অনশন করে আসছে। বিয়ের কথা বলে যৌতুকের অগ্রীম টাকা নিলেও আজো বিয়ে করেনি প্রেমিক সাখওয়াত হোসেন। ওই উপজেলার সানিয়াজান ইউনিয়নের নিজ শেখ সুন্দর মাষ্টারপাড়া এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটেছে।

স্থানীয়রা জানান, ওই এলাকার বদিউজ্জামানের পুত্র সাখওয়াত হোসেন পার্শ্ববর্তী এক স্কুল ছাত্রীর সাথে বেশ কিছু দিন ধরে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তুলে। বিষয়টি মেয়ের পরিবার বুঝতে পেয়ে মেয়েটিকে অন্যত্রে বিয়ে ঠিক করে। মেয়ের বাবা যৌতুকের কিছু টাকা বর পক্ষকে দিয়েও দেয়। কিন্তু সাখওয়াত বিষয়টি জানতে পেয়ে ওই বিয়ে ভেঙ্গে দেয়।

সাখওয়াত তার প্রেমিকা ওই স্কুল ছাত্রীকে তার বাড়িতে আসতে বলে। প্রেমিক সাখওয়াতের কথা মত প্রেমিকা গত ১৯ আগস্ট সাখওয়াতের বাড়িতে আসে। এ সময় সাখওয়াত বিয়ে না করেই ধর্ষনের চেষ্টা করেন তার প্রেমিকাকে। ওই সময় স্কুল ছাত্রী চিৎকার করলে সাখওয়াত পালিয়ে যায়। সেই দিন থেকে বিয়ের দাবীতে ওই প্রেমিকা স্কুল ছাত্রী অনশন শুরু করে সাখওয়াতের বাড়িতে।

ওই দিন রাতে স্থানীয়রা এ ঘটনাটি মিমাংশা করতে গ্রাম্য সালিশে বসে। ওই সালিশে দেড় লক্ষ টাকা যৌতুক ঠিক করে সাখওয়াত তার প্রেমিকাকে বিয়ে করতে রাজি হয়। মেয়ের বাবা যৌতুকের ৫ হাজার টাকা সালিশ বৈঠকের মাধ্যমেই ছেলে পক্ষকে দেয়া। কিন্তু ঘটনার ৬ দিন অতিবাহিত হলেও আজো মেয়েটিকে বিয়ে করে নাই প্রেমিক সাখওয়াত। এ ঘটনায় মেয়ের বাবা বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানায় একটি অভিযোগ করেছে।

সানিয়াজান ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল গফুর এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আমরা স্থানীয় ভাবে বিয়ের মাধ্যমে বিষয়টি মিমাংশা করতে চেষ্টা করছি।

হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক জানান, এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য