মাসুদ রানা পলক,ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগ নেতা জয়নাল আবেদিনকে মারপিট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই উপজেলার ভাতুরিয়া ইউনিয়নের কাঁঠালডাঙ্গী বাজারে অবস্থিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আহত জয়নাল আবেদিন (৫৪) ভাতুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক; এছাড়াও তিনি হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এবং বহতি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

বর্তমানে আওয়ামী লীগ নেতা জয়নাল আবেদিন দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আ.লীগ নেতা জয়নাল আবেদিনের ভাই মো. আলমগীর বলেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকার বিপক্ষে কাজ করার অভিযোগে ভাতুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সামসুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সোহরাব প্রধান, সদস্য ও ভাতুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান সরকার, তার ভাই সদস্য শাহেরুল, নুরুল সহ ১১ জনকে সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত মোতাবেক বহিস্কার করা হয়।

তিনি বলেন, আ.লীগ থেকে বহিস্কার করার জের ধরে ভাতুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য চেয়ারম্যান শাহজাহান সরকার ও তার লোকজন প্রায় সময় আমার ভাই জয়নাল আবেদিনের উপর চড়াও হয়।

শুক্রবার রাতে ভাতুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বহিস্কৃত সদস্য চেয়ারম্যান শাহজাহান সরকারের নেতৃত্বে আ.লীগ থেকে বহিস্কৃত অ্যাডভোকেট সোহরাব প্রধান, চেয়ারম্যানের ছেলে মামুন সরকার, চেয়ারম্যানের ভাই শাহেরুল, জাহেরুল ইসলাম, হামিদুল, সামসুল সহ প্রায় ৪০ জন সন্ত্রাসী কাঁঠালডাঙ্গী বাজারে অবিস্থত ভাতুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে আমার ভাই ভাতুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদিনের উপর হামলা চালায়। এসময় আমার ভাই জয়নাল আবেদিন বাঁধা দিলে সন্ত্রাসীরা তাকে বেধরক মারপিট করে। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

এরপর স্থানীয় লোকজন আওয়ামী লীগ নেতা জয়নাল আবেদিনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। তার অবস্থায় আশঙ্কাজনক হলে তাকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে।

এ ঘটনার সাথে যারা জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান আ.লীগ নেতা জয়নাল আবেদিনের ভাই মো. আলমগীর।

আ.লীগ নেতার উপর হামলার বিষয়ে হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হাসান মুকুল বলেন, এ ঘটনাটি আসলেই নিন্দনীয় ও দু:খজনক। চেয়ারম্যান শাহজাহান সরকার, তার ভাই শাহেরুল ও তার ছেলে মামুন সরকার ভাতুরিয়া ইউনিয়নে ত্রাস সৃষ্টি করেছে; আমরা তাদের কঠোর শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে হরিপুর থানার ওসি আমিরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি; মামলা হলে আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য