বিরল (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বিরলে ছেলে, ছেলের বৌ, নাতী-নাতনী মিলে নির্মম ভাবে হত্যা করলেন ফুলমতি বেওয়াকে। বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২ টার সময় বিরল উপজেলার ৮ নং ধর্মপুর ইউপির ধর্মজৈইন ভুটিয়াবন গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

প্রত্যক্ষ দর্শীরা জানান, ঐ এলাকার মৃত জহুর আলীর স্ত্রী ফুলমতি বেওয়া (৬০) কে তার প্রায় ৫ লক্ষাধীক টাকার সম্পদের লোভে নিজের সন্তান আঞ্জুমিয়া ফুলু (৪০) তার স্ত্রী মারুফা বেগম (৩৫), নাতী মফিজুর রহমান (২২) ও নাত বৌ, নাতনী মিলে গত ৩ দিন ধরে ঘরে আটকিয়ে রেখে অমানুষিক নির্যাতন চালান।

তারা আরো জানান, গত ৩ দিনে তাকে তেমন কোন ভাত খেতে দেওয়া হয়নি। ঘটনার দিন সকাল ৯ টার সময় তারা সকলে মিলে সু কৌশলে খাবারের সাথে বিষ মিশিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা চালান। কিছুক্ষন পর বিষয়টি আশপাশের লোকজন জানতে পেরে তারা ফুল মতিকে উদ্ধারকরে হাসপাতালে নেওয়ার চেষ্টা করলে ফুল মতির ছেলে ফুলু ও তার বাড়ীর লোক জন বাহিরের কোন লোককে বাড়ীতে ঘুটতে দেননি এবং কি অনেকে জোর করে বাড়ীতে ঘুকতে চাইলে তাদেরকেউ ধারালো অস্ত্র হাতে নিয়ে হত্যার হুমকি ও নারী নির্যাতনের ভয় ভীতিদেখান। ফলে প্রতিবেশীরা ফুলমতিকে চিকিৎসা বা হাসপাতালে নিতে ব্যার্থ হন।

দুপুর সাড়ে ১২ টার সময় ছেলে ও তার লোকজন ফুলমতি বিষপানে মারা গেছে জানালে আমপাশের লোকজন বিষয়টি পুলিশকে খবর দিলে থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল শেষে লাশ উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাড়ীর লোকজন পলাতক ছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য