নীলফামারীর সৈয়দপুরে চাঁদাবাজি মামলায় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আহসান হাবিব সোহাগ সরকারকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

২২ আগস্ট শহরের ওয়াপদা বাইপাস মহাসড়ক সংলগ্ন স্থান থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। মামলা সূত্রে জানা যায়, ওই এলাকায় পাতাকুড়ি বিনোদন পার্ক নামে একটি বিনোদন পার্ক স্থাপন করেন আলহাজ্জ জয়নাল আবেদীন সরকার।

স্থাপনের পর বিনোদন পার্কটি অত্যন্ত জনপ্রিয়তা অর্জন করে। অল্প সময়ের মধ্যে চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে এ পার্কের সুনাম। হঠাৎ করে ওই এলাকার মরহুম আব্বাস আলী সরকারের ছেলে সৈয়দপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আহসান হাবিব সোহাগ সরকার বিনোদন পার্কে তার দলবলসহ প্রবেশ করে ক্যাশ বাক্স থেকে ১০ হাজার টাকা জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয় এবং আরো ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে বসে।

এর একপর্যায়ে আগ্নেয়াস্ত্র উঁচিয়ে ওই পার্কের সত্ত্বাধিকারীকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়। পরদিন সে বিনোদন পার্কের প্রধান ফটকে বিনোদন পার্কটি বন্ধ ঘোষণা করা হলো এমন একটি ব্যানার ঝুলিয়ে দেয়। সেই সাথে তার বাহিনী নিয়ে পার্কের প্রধান ফটকে মহড়া আড্ডা বসায়। এরপরও দর্শনার্থী এলে তাদেরকে ভয়ভীতি দেখিয়ে সেখান থেকে চলে যেতে বলা হয়।

এ ধরনের কার্যকলাপ সহ্য করতে না পেরে গত ১৯ আগস্ট ৫ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন বিনোদন পার্কের মালিক। ওই মামলায় গত ২২ আগস্ট থানা পুলিশ প্রধান আসামি সোহাগকে গ্রেফতার করে। ওইদিনেই তাকে আদালতের মাধ্যমে নীলফামারী জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা দিলীপ কুমার রায় জানান, মামলার অন্যান্য আসামিরা পলাতক রয়েছে। তবে তাদেরকে দ্রুত গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য