তেহরান ও পশ্চিমা শক্তিগুলোর মধ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যে ভূমধ্যসাগর থেকে আটক ইরানি তেলবাহী ট্যাংকারটি শেষ পর্যন্ত জিব্রাল্টার ছেড়েছে।

ইরানি ওই জাহাজটিকে ফের আটক করার অনুরোধ জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র, কিন্তু ব্রিটিশ নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলটি তা প্রত্যাখ্যান করার কয়েক ঘণ্টা পর রোববার রাতে জাহাজটি জিব্রাল্টার ছেড়ে যায়; জাহাজ চলাচল সংক্রান্ত তথ্যে এমনটি দেখা গেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

২১ লাখ ব্যারেল তেল বহনকারী ইরানি সুপারট্যাংকারটি ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) আরোপিত নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে সিরিয়ায় তেল নিয়ে যাচ্ছে সন্দেহে ৪ জুলাই ব্রিটিশ রয়েল মেরিন ভূমধ্যসাগরের জিব্রাল্টার প্রণালী থেকে সেটি আটক করেছিল।

তারপর থেকে আটক অবস্থায় নিকটবর্তী জিব্রাল্টারের উপকূলে জাহাজটি নোঙর করে ছিল। জিব্রাল্টার উপকূলে থাকার সময়েই ট্যাংকারটির নাম ‘গ্রেস ওয়ান’ পরিবর্তন করে ‘এড্রিয়ান দরিয়া ওয়ান’ রাখা হয়।

স্থানীয় সময় রোববার রাত প্রায় ১১টার দিকে এড্রিয়ান দরিয়া ওয়ান জিব্রাল্টার ছেড়ে যায় বলে আন্তর্জাতিক অর্থ বাজার ও অবকাঠামোগত তথ্য সরবরাহকারী কোম্পানি রিফিনিটিভের প্রকাশ করা তথ্যে দেখা গেছে। ট্যাংকারটির গ্রিসের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।

এর আগে ব্রিটেনে নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূত হামিদ বায়েইদিনেজাদ এক টুইটে রোববার রাতে জাহাজটি জিব্রাল্টার ছাড়তে পারে বলে জানিয়েছিলেন।

রোববার সকালে গণমাধ্যমে আসা ভিডিও ও বিভিন্ন ছবিতে দেখা গেছে, জাহাজটির সামনের অংশে ‘গ্রেস ওয়ান’ লেখা কালো রঙ দিয়ে মুছে সেখানে সাদা রঙে নতুন নাম ‘এড্রিয়ান দরিয়া ওয়ান’ লেখা হয়েছে ও ট্যাংকারটিতে ইরানি পতাকা উড়ছে।

বৃহস্পতিবার ট্যাংকারটির আটকের মেয়াদ শেষ হলেও শুক্রবার ওয়াশিংটনের একটি আদালত ট্যাংকারটিকে আটক করতে একটি পরোয়ানা জারি করেছিল। রোববার জিব্রাল্টার জানায়, তারা ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) আইন মানতে বাধ্য থাকায় যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধ রাখা তাদের পক্ষে সম্ভব না।

ট্যাংকারটিকে পাহারা দেওয়ার দরকার হলে নিজেদের নৌবাহিনী পাঠাতে প্রস্তুত আছে বলে জানিয়েছে ইরান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য