আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধা-সাঘাটা সড়কের কুকহারহাট এলাকায় বন্যার পানির তোড়ে প্রায় ৩শ’ ৫০ ফুট রাস্তা ভেঙে যাওয়ায় রাস্তার মাটি সরে গেছে। ফলে গাইবান্ধা জেলার সাথে সাঘাটা উপজেলা শহরের সড়কে সকল প্রকার যানবাহন ও পথচারি চলাচল ১৯ দিন যাবত বন্ধ রয়েছে।

বিধ্বস্ত সড়কটি এই মুহুর্তে মেরামত করা সম্ভব না হওয়ায় দ্রুত যোগাযোগ ব্যবস্থা পুনঃস্থাপন করতে ক্ষতিগ্রস্ত এই সড়কের উপর সড়ক ও জনপদ বিভাগ জরুরী ভিত্তিতে ৩শ’ ফুট একটি ভাসমান সেতু নির্মাণ করে। বন্যার পানির তোড়ে রাস্তার ৩শ’ ৫০ ফুট সড়কের মাটি ধসে যাওয়ায় কোথাও ৬০ ফুট থেকে ৬৫ ফুট বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

এসমস্ত গর্তগুলো পানিতে ভরাট থাকায় নতুন করে সড়ক নির্মাণ সময় সাপেক্ষ হওয়ায় ভেঙে যাওয়া রাস্তার উপরেই একটি ভাসমান সেতু নির্মাণ করা হয়। পানির উপর বাঁশ পুঁতে সারিবদ্ধভাবে ড্রাম সাজিয়ে ওই ড্রামের উপর বাঁশের তৈরী বেড়া বসিয়ে সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছে। সম্প্রতি এই ভাসমান সেতুর উপর দিয়ে ভারী যানবাহন করা সম্ভব না হলেও সিএনজি, অটোরিক্সা, অটোবাইক ও পথচারি চলাচল অব্যাহত রয়েছে।

উলে¬খ্য, দীর্ঘ ১৯দিন যাবত সড়কটি বন্ধ থাকায় গাইবান্ধা জেলা শহর এবং ফুলছড়ি ও সাঘাটা উপজেলার ১৭টি ইউনিয়নের মানুষের পথ সরাসরি চলাচল বন্ধ থাকে। ফলে এতদঞ্চলের মানুষ নৌকা দিয়ে ভাঙন এলাকা পাড় হয়ে এবং বিকল্প হিসেবে বোনারপাড়া-সাঘাটা সড়কে চলাচল করতে বাধ্য হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য