দিনাজপুর সংবাদাতাঃ যতদিন বাংলাদেশ থাকবে, ততদিন এদেশে এরশাদের নাম চিরউজ্জ্বল হয়ে থাকবে। তিনি বাংলাদেশে উপজেলা প্রথা চালুসহ বিভিন্ন সংস্কারমূলক কাজ করে এদেশের মানুষের মনে তিনি চির জাগরুক হয়ে থাকবেন।

৩ আগষ্ট শনিবার বিকালে দিনাজপুর নাট্য সমিতি হলে প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি, জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু আলহাজ্ব হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের স্মরণে এক স্মরণ ও দোয়া মাহফিলে বক্তারা উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

জেলা জাপার সভাপতি আলহাজ্ব দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন, জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা জাপার সাধারণ সম্পাদক আহমেদ শফি রুবেল।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা জাপার সাবেক সভাপতি আব্দুস সামাদ চৌধুরী, জেলা জাপার সহ-সভাপতি এ্যাড. মোঃ নুরুল ইসলাম (১), এ্যাড. নুরুল ইসলাম (৪), এ্যাড. মীর তৌহিদুল ইসলাম স্বপন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুধীর চন্দ্র শীল, ডাঃ মোঃ আনোয়ার হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মইনুল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ইদ্রিস আলী ইদন, শাহিনুর ইসলাম শাহীন, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক মীর আনিসুজ্জামান মিলন, প্রচার সম্পাদক একেএম নওশাদ ফরহাদ, যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক নাসিম খান পিরু প্রমূখ। অনুষ্ঠানে আহমেদ শফি রুবেল বলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি পল্লীবন্ধু এরশাদ দিনাজপুরসহ সারাদেশেই ব্যাপক উন্নয়ন সাধন করেছিলেন। তিনি পল্লীর মানুষের কথা চিন্তা করে পল্লী রেশনিং ব্যবস্থা চালু করেছিলেন। রাষ্ট্রধর্ম ইসলামসহ হাইকোর্টের বিকেন্দ্রীকরণেরও চেষ্টা করেছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে আলহাজ্ব মোঃ দেলোয়ার হোসেন বলেন, পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এদেশের একজন শ্রেষ্ঠ সংস্কারক ছিলেন। তাঁর যুগান্তকারী পদক্ষেপের কারনেই যমুনা সেতুসহ মেঘনা, গোমতি সেতু নির্মাণ করে যাতায়াত ব্যবস্থার প্রভূত উন্নয়ন সাধন করেছিলেন।

পরে এরশাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য