নীলফামারীতে গত ২ দিনে নুতন করে ৬ জন ডেঙ্গু রোগী হাপতালে ভর্তি হয়েছেন। এরা হলেন, জেলার ধর্মপাল গ্রামের শাহাবুদ্দিন, সৈয়দপুর কয়ানিজ পাড়ার বাসিন্দা ও পৌরসভার লাইসেন্স সহকারী কাজী আসাদুজ্জামান, ইসলামবাগ এলাকার সোহেল খান, সৈয়দপুর শহরের কয়ানিজ পাড়ার মাহবুব হাসান, নুতন বাবু পাড়ার কাবিরা ইয়াসমিন, কামারপুকুর দলুয়াপাড়ার শামীম আহম্ম্দে।

জানা যায়, আজ শনিবার সকালে ঢাকা থেকে জ্বর নিয়ে বাড়ীতে আসে শাহাবুদ্দিন। দুপুরে শাহাবুদ্দিন জ¦র নিয়ে ডোমার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হলে তার অবস্থার দ্রুত অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ রায়হান বারী জানান, তার অবস্থা খুবই আশংকাজনক। অপরদিকে অপর ৫ জন রোগী গতকাল শুক্রবার ও আজ শনিবার সকালে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসাপাতালে জ¦র নিয়ে আসে।

কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের সবাইকে হাসপাতালে ভর্তি করে নেয় এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসাপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডাঃ আরিফুল হক সোহেল ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এরা সকলেই ৩ দিন আগে ঢাকা থেকে এসেছে। তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে আলাদা কর্ণার করে ডেঙ্গু আক্রান্তদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান। হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হওয়ার খবরে জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয়দের আশঙ্কা এভাবে ঢাকা ফেরত রোগীরা জেলার বিভিন্ন এলাকায় আসায় জেলাজুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে ডেঙ্গু। তবে চিকিৎসকেরা আতঙ্কিত না হতে সবাইকে আশ্বস্ত করছেন। উল্লেখ্য যে, ইতঃপূর্বে ঢাকা ফেরত ৩ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ নিয়ে জেলায় ৯ জন ডেঙ্গ রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য