সংবাদ সম্মেলনঃ আদালতের সিদ্ধান্তকে অমান্যা করে সন্ত্রাসী দ্বারা জীবননাশের হুমকী ও বাড়ি দখলের চক্রান্ত করছে ভাড়াটিয়া তাহেরুন নেছা। জীবন ও সম্পদ রক্ষার্থে ন্যায় বিচার প্রাপ্তির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন দিনাজপুর শহরের অসহায় এক নারী।

মঙ্গলবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত অভিযোগ করেছেন শহরের পাহাড়পুর মহল্লার বাসিন্দা মো: শাহাদত হোসেনের স্ত্রী সেতারা বানু।

সেতারা বানু সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ৩০ বছর ধরে তিনি ও তার পরিবার শহরের পাহাড়পুর মহল্লায় খরিদা জমির উপর নির্মিত নিজ বাসায় বসবাস করে আসছেন। এই বাসার একটি অংশে বেশকিছু দিন আগে মোহাম্মদ আলীর স্ত্রী তাহেরুন নেছাকে ভাড়া প্রদান করেন।

সেতারা বানু জানান,অর্থনৈতিক সমস্যার কারনে বাড়িটি বিক্রি করতে চাইলে তাহেরুন নেছা ক্রয় করতে ইচ্ছুক হয়,উভয়ের সম্মতির ভিক্তিতে জমির দাম নির্ধারন পূর্বক ৭০ হাজার টাকায় বায়না রেজিষ্টারী করা হয়। বায়না রেজিষ্টারীতে বাকি টাকা পরিশোধের সময় নির্ধারন থাকে ৩ বছর এবং সেখানে উল্লেখ থাকে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সমস্ত পাওনা টাকা পরিশোধ না করলে বায়নানামা বাতিল বলে গন্য হবে। বারংবার তাগাদা দেয়া সত্বেও তাহেরুন নেছা উল্লেখিত সময়ের মধ্যে টাকা পরিশোধ না করেই সন্ত্রাসীদের দ্বারা আমাকে বাড়ি ছেড়ে দেয়ার জন্যে হুমকী ধমকী প্রদান করতে থাকে।

প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় থাকা তাহেরুন নেছা আমার ভাড়াটিয়া হয়েও পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ১০/১১ বছর পর আমারই বিরুদ্ধে দিনাজপুরের বিজ্ঞ সিনিয়র জজ আদালতে মামলা দায়ের করে,মামলা নং ০১/২০০৬। মামলাটিতে আদালত তার পক্ষে রায় দিলে আমি হাইকোর্টে আপিল করি, যার নং ১৬৯৯/১০ সিভিল রিভিশন।

হাইকোর্ট এখনো মামলাটির বিষয়ে কোন রায় প্রদান করেনি। হাইকোর্টে মামলাটি নিষ্পতি না হওয়া সত্বেও তাহেরুন নেছা আবারো জেলা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে দখল সত্ব বুঝে দেয়া আবেদন করলে বিজ্ঞ জজ ২৩ এপ্রিল/১৯ দখল বুঝে দেয়ার দিন ধার্য্য করেন। অথচ তাহেরুন নেছা জজ মহোদয়ের নির্ধারিত ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত অপেক্ষা না করেই সন্ত্রাসী বাহিনীর সহায়তায় আমার বাড়ি ঘরের তালা ভাংচুর করে নগদ টাকা এবং স্বর্ণালংকার লুটপাট করে নেয়। এবাপারে আমি অসহায় নারী হয়ে ততক্ষনাত থানায় অভিযোগ করলেও এখন পর্যন্ত থানা মামলা গ্রহন করেনি।

তিনি লিখিত অভিযোগে বলেন,তার বাসার ভাড়াটিয়া তাহেরুন নেছার সঙ্গে বাড়ি বিক্রির বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই আদালতে মামলা বিচারাধীন রয়েছে। বাড়িটি দখলের জন্যে সন্ত্রাসীদের দ্বারা গত ১১ এপ্রিল ২০১৯ ঘরের তালা ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সদরের পাহাড়পুর এলাকার অসহায় নারী সেতারা খাতুন।

সংবাদ সম্মেলনে সেতারা বানু বলেন,ক্রয় সুত্রে জায়গা ও বাড়ির মালিক হয়েও ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী একজন চেয়ারম্যানের ছত্রছায়ায় থাকা চতুর ভাড়াটিয়ার গভীর ষড়যন্ত্রের কারনে জায়গা জমি-ঘরবাড়ি এবং জীবন হারাতে বসেছি।

সংবাদ সম্মেলন হতে আমি জীবন ও সম্পদ রক্ষার্থে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট ন্যায় বিচার প্রাপ্তির দাবী জানাচ্ছি। সংবাদ সম্মেলনে সেতারা বানু‘র পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তার নাতনী তাসমুবা খাতুন ও উপস্থিত ছিলেন কন্যা শারমিন খাতুন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য