মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন থেকে বিদায় নেওয়া উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের তালিকায় যোগ হল আরো একটি নাম। এবার পদত্যাগ করছেন দেশটির জাতীয় গোয়েন্দা পরিচালক ডান কোটস।

ট্রাম্প রোববারই সেকথা ঘোষণা করে এক টুইটে বার্তায় জানিয়েছেন, কোটস অগাস্টের মাঝামাঝিতে পদত্যাগ করবেন। তার স্থলাভিষিক্ত হবেন টেক্সাসের রিপাবলিকান কংগ্রেস সদস্য জন র‌্যাটক্লিফ। তিনি দারুণ নেতৃত্ব দেবেন এবং দেশের জন্য উৎসাহমূলক কাজ করবেন বলেই মনে করেন ট্রাম্প।

রাশিয়া ও উত্তর কোরিয়া নিয়ে প্রায়ই বিতর্কে জড়িয়েছেন ট্রাম্প ও কোটস। জাতীয় গোয়েন্দা পরিচালক হিসাবে কোটস এর দায়িত্ব ছিলসিআইএ এবং এনএসএসহ যুক্তরাষ্ট্রের ১৭ টি গোয়েন্দা সংস্থার দেখভাল করা।

কিন্তু কোটসের প্রায় পুরো মেয়াদেই তার সঙ্গে ট্রাম্পের ঠোকাঠুকি লেগে থেকেছে। কারণ, ট্রাম্প গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর কড়া সমালোচক। ইরানের হুমকির বিষয়ে গোয়েন্দা প্রধানরা অসাড় এবং নিষ্ক্রিয় বলে জানুয়ারিতে সমালোচনা করেছিলেন ট্রাম্প।

ট্রাম্পের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় এর আগে প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনসহ অনেকেই প্রশাসন থেকে সরে গেছেন। এবার সর্বশেষ সরে যাচ্ছেন ডান কোটস।

পদত্যাগপত্রে কোটস লিখেছেন, তার আড়াই বছরের দায়িত্ব পালনকালে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে এখন বেশি শক্তিশালী হয়েছে। ফলে তিনি বিশ্বাস করেন, এখন তার সময় হয়েছে জীবনের নতুন অধ্যায়ে পদার্পন করার।

কোটস আরো বলেন, পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে ট্রাম্পের সঙ্গে ঘোর বিরোধপূর্ণ অবস্থায় থাকার সময়ও ফেব্রুয়ারিতে প্রেসিডেন্ট তাকে তার পদে থাকতে বলেছিলেন।

কিন্তু ট্রাম্পের সঙ্গে ডান কোটসের সবচেয়ে বেশি মতবিরোধ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ, ইরানের পারমাণবিক চুক্তি এবং উত্তর কোরিয়া ইস্যুতে ট্রাম্পের সংহতির উদ্যোগ নিয়ে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য