চলতি মাসে আটক করা পানামার পতাকাবাহী একটি ট্যাংকারের নয় ভারতীয় ক্রুকে মুক্তি দিয়েছে ইরান।

শনিবার ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

মন্ত্রণালয়টি জানিয়েছে, তারা একই জাহাজের আটক বাকী তিন ক্রুকেও মুক্তি দেওয়া আবেদন জানিয়েছে।

পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্গে বাড়তে থাকা উত্তেজনার মধ্যে ১৩ জুলাই পানামার পতাকাবাহী এমটি রিয়া ট্যাংকারটি আটক করে ইরানের কোস্টগার্ড। ওই জাহাজটিতে ১২ জন ভারতীয় ক্রু সদস্য ছিল বলে জানিয়েছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রণালয়টির মুখপাত্র রাভীশ কুমার বলেন, “নয় ক্রু সদস্যকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। তারা শিগগিরই ভারতের পথে রওনা হবেন। বাকী ক্রু সদস্যদের মুক্তি দেওয়ার জন্য আমাদের মিশন সংশ্লিষ্ট ইরানি কর্তৃপক্ষগুলোর প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে।”

বাকী তিন ভারতীয় ক্রুকে কেন আটক রাখা হয়েছে তার কোনো কারণ জানানো হয়নি।

আটকের কয়েকদিন পর ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে ওই জাহাজটি ফুটেজ দেখানো হয়। ইরানের রেভোলুশনারি গার্ড তেল চোরাচালানের জন্য জাহাজটিকে আটক করেছে বলে জানিয়েছে তারা।

১৯ জুলাই ইরান হরমুজ প্রণালী থেকে স্টেনা ইমপেরো নামের একটি ব্রিটিশ পতাকাবাহী ট্যাংকারও আটক করেছে। ওই জাহাজেও ১৮ জন ভারতীয় ক্রু সদস্য রয়েছেন।

ইরান সম্প্রতি ওই ক্রুদের সঙ্গে ভারতীয় কন্সুলারকে দেখা করতে দিয়েছে বলে ভারতীয় ও ইরানি কর্তৃপক্ষগুলো জানিয়েছে।

ব্রিটিশ ওই জাহাজের ভারতীয় ক্রুদের মুক্তি দেওয়ার বিষয়টি নিয়েও ভারত তৎপরতা চালাচ্ছে বলে দেশটির পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ভি. মুরালিধরন জানিয়েছেন।

ইরানের সঙ্গে ভারতের রাজনীতি ও জ্বালানি সংক্রান্ত দীর্ঘদিনের বোঝাপড়া রয়েছে। কিন্তু সম্প্রতি ইরানের তেল রপ্তানির ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের কাছ থেকে তেল নেওয়া বন্ধ করেছে ভারত।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য