ভারতে ঝাড়খণ্ড রাজ্যের এক মন্ত্রী বিধানসভার এক মুসলমান সদস্যকে ‘জয় শ্রীরাম’ বলার জন্য জোর করছেন, এরকম একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বিধানসভা ভবনে সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরার সামনেই রাজ্যের নগর-উন্নয়ন মন্ত্রী সি. পি. সিং কংগ্রেস দলের এক বিধায়ক ইরফান আনসারিকে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দিতে বলছেন।

এক সময়ে মি. আনসারির হাতটা তুলে ধরে মন্ত্রী নিজেই জোরে জোরে ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে থাকেন।

সেখানেই শেষ হয় নি। এরপর মি. আনসারিকে উদ্দেশ্য করে ওই মন্ত্রী বলেন, “আপনাদের পূর্বপুরুষরা বাবর বা তৈমূর লঙ ছিল না। আপনাদের পূর্বপুরুষরাও জয় শ্রীরামই ছিলেন।”

ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, ইরফান আনসারি তখন পাল্টা জবাব দিচ্ছেন এইভাবে: “আপনি রামের নাম নিয়ে আমাকে ভয় দেখাবেন না! রাম শুধু বিজেপির নয়, তিনি সকলেরই। অযোধ্যায় গিয়ে দেখে আসুন রাম কী অবস্থায় রয়েছেন!”

এর ঠিক আগেই স্থানীয় এক সাংবাদিক মি. আনসারির সাক্ষাৎকার নিচ্ছিলেন। সেখানেই হাজির হয়ে মি. সিং ‘জয় শ্রীরাম’ বলানোর চেষ্টা করেন।

জোর করে ‘জয় শ্রীরাম’ বলানোর চেষ্টা করেছিলেন, এটা অবশ্য ওই মন্ত্রী অস্বীকার করছেন।

তিনি বিবিসিকে বলেন, “একটা সংবাদ পোর্টালকে দেওয়া সাক্ষাৎকারের সময়ে একটু মজার ছলে হয়েছে ঘটনাটা। ওই সাক্ষাতকারে ইরফান আনসারি বলছিলেন যে তিনিও রাম-সেবক। তখনই আমি বলি যে তাহলে আপনি জয় শ্রীরাম বলুন। জোর করেছি, এরকমটা বলা ঠিক নয়।”

“আপনাকে যদি আল্লাহু আকবর বলতে বলা হয়, তাহলে আপনি কী করবেন?” বিবিসির এই প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী সি. পি. সিং সরাসরি জবাব দেন নি।

তিনি বলেন, “দেখুন প্রত্যেক মানুষেরই নিজের নিজের ধর্মের স্লোগান দেওয়া উচিত। অন্য ধর্মের দেব-দেবতার নামে জয়ধ্বনি কেন করবেন কেউ। আমাদের সব ধর্মকেই সম্মান দেওয়া উচিত।”

অন্যদিকে ইরফান আনসারি বলছেন, “এই মন্ত্রীর জন্য বিধানসভা অধিবেশন চলতেই পারে না। উল্টোপাল্টা কথা বলেন তিনি অধিবেশনের সময়ে, তার ফলে হাঙ্গামা শুরু হয়ে যায়। আমরা সাধারণ মানুষের কথা বলতেই পারি না।”

“বিধানসভার ভোট আসছে। এতদিন সরকার কোনও কাজই করে নি। এখন জয় শ্রীরাম আওয়াজ তুলে আসল ইস্যুগুলোকে গুলিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। ওই ঘটনায় মি. সিং আমার হাত তুলে ধরে জয় শ্রীরাম বলতে বলছিলেন বারবার, কিন্তু আমি কিছুতেই বলি নি। তবে জবরদস্তি করেছেন তিনি এটা বলা সত্যের অপলাপ হবে,” জানাচ্ছিলেন ইরফান আনসারি।

যে স্থানীয় সাংবাদিক ইরফান আনসারির সাক্ষাতকার নিচ্ছিলেন, সেই সানি শরদ বলছিলেন, “আমি যেখানে ইরফান আনসারির ইন্টারভিউ নিচ্ছিলাম, তার পাশেই সি পি সিং অন্য কোনও চ্যানেলকে সাক্ষাতকার দিচ্ছিলেন। আমাকে দেওয়া সাক্ষাতকারে মি. আনসারি বলছিলেন যে ভগবান রাম সকলের। সাক্ষাতকারটা শেষ হওয়ার পরে মি. আনসারির মন্ত্রীর কাছে ওই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাই। তখনই মি. আনসারির হাত তুলে ধরে জয় শ্রীরাম বলতে বলেন মন্ত্রী। আমার সাক্ষাতকারের ভিডিওটা এই ঘটনায় ভাইরাল হয়ে গেছে!”

সম্প্রতি ভারতের নানা জায়গাতেই মুসলমানদের ‘জয় শ্রীরাম’ বলার জন্য জোর জবরদস্তি করা হচ্ছে। একটি হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল যে কলকাতার একটি ট্রেনে সফর করার সময়ে কয়েকজন মুসলমান ব্যক্তিকে ‘জয় শ্রীরাম’ বলার জন্য জোর করা হয়। তারা সেটা বলতে চান নি বলে মারধর করে ট্রেন থেকে ফেলে দেওয়া হয়েছিল কয়েকজন মুসলমানকে।

কেন ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে জবরদস্তি করা হবে, সেই প্রশ্ন তুলে ভারতের ৪৯ জন নামকরা শিল্পী, কবি, চলচ্চিত্র পরিচালক, অভিনেতা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশ্যে একটি খোলা চিঠি দিয়েছেন দিন কয়েক আগে।

ওই চিঠির ফলে বিজেপি নেতৃত্বের রোষে পরেছেন তাদের অনেকেই। আবার শুক্রবার ওই বিশিষ্ট নাগরিকদের খোলা চিঠির পাল্টা একটি খোলা চিঠি দিয়েছেন ৬২জন কবি, শিল্পী, অভিনেতা, চিত্র পরিচালক – যাদের অনেকেরই সঙ্গে হিন্দুত্ববাদীদের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য