দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ফেসবুকে “পদ্মা সেতু নির্মাণে মানুষের ১ লক্ষ মাথা লাগবে বলে সোস্যাল মিডিয়া ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর দায়ে দিনাজপুর কোতয়ালী থানা পুলিশ মোস্তফা মনওয়ার হোসেন (৩৫) নামে ফারইষ্ট ইসলামি লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ১ শাখা ব্যবস্থাপককে আটক করেছে।

২৫ জুলাই বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় দিনাজপুর পুলিশ লাইনস অডিটোয়ামে সাংবাদিকদের এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম বিপিএম।

আটকের সময় তার কাছ থেকে ১টি ল্যাপটপ, ১টি মডেম, ২টি মোবাইল ফোন ও ৩টি সীম উদ্ধার করা হয়। এর আগে ২৫ জুলাই বুধবার দিবাগত রাত ২টায় তাকে নিজ বাসা থেকে আটক করা হয়। আটক মোস্তফা মনওয়ার হোসেন দিনাজপুর সদর উপজেলার ৬নং আউলিয়াপুর ইউনিয়নের মহরমপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে।

মোস্তফা মনওয়ার হোসেন দিনাজপুর শহরের চারুবাবুর মোড় শাখা ফারইস্ট লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের শাখা ব্যবস্থাপক।

প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম জানান, রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দিনাজপুর কোতয়ালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বজলুর রশিদের নেতৃত্বে পুলিশের একটি অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তাকে আটক করা হয়।

ফেসবুকে আটক মোস্তফা মনওয়ার হোসেন লিখেছেন- “চলমান পদ্মা সেতু নির্মানে বাধা সৃষ্টি হয়েছে, সেখানে ১ লক্ষ অধিক পরিমাণ মানুষের মাথার প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সারাদেশে ৪২টি দল মাথা সংরক্ষণ করার জন্য কাজ করছে। ধারালো ছুরি দিয়ে মাথা কেটে নেওয়া বা বিষাক্ত গ্যাস ১০ থেকে ১৫ হাত দুর থেকে স্প্রে করার পরে অজ্ঞান হলে মাথা কেটে নেয়। খুলনায় অনেক মানুষের মাথা কেটে নেওয়া হয়েছে।”

আটক মোস্তফা মনওয়ার হোসেনর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম বিপিএম জানান।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মাহফুজ্জামান আশরাফ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) কাজেম উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ড. রুহুল আমিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুশান্ত সরকার, দিনাজপুর কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেদওয়ানুর রহিম, পরিদর্শক (তদন্ত) বজলুর রশিদ প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য