টানা সপ্তম সপ্তাহের মতো চীন শাসিত হংকংয়ে সরাসরি নির্বাচনের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন কয়েক হাজার মানুষ। রবিবারের এই বিক্ষোভে আগের কর্মসূচিতে পুলিশের কৌশল নিয়ে স্বতন্ত্র তদন্তেরও দাবি জানানো হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

প্রায় ১০ হাজার বিক্ষোভকারী আডমিরাল্টিতে সরকারি ভবনের সামনে জড়ো হয়। পুলিশ তাদেরকে অবিলম্বে চলে যেতে বললেও তারা সেখানে বিক্ষোভ করেন। এছাড়া ২০১৪ সালের আম্ব্রেলা আন্দোলনের অবস্থান কর্মসূচির স্থানেও অনেকে জড়ো হন।

এক সময়কার ব্রিটিশ কলোনি হংকং এখন চীনের অংশ। যদিও ‘এক দেশ, দুই ব্যবস্থা’র অধীনে কিছু মাত্রায় স্বায়ত্তশাসন ভোগ করছে হংকং। দেশটির নিজস্ব বিচার ও আইন ব্যবস্থা রয়েছে যা মূল চীনের চেয়ে ভিন্ন।

গত ৯ জুন থেকে চীনবিরোধী এ আন্দোলনের সূত্রপাত মূলত কথিত অপরাধী প্রত্যর্পণ বিল নিয়ে। আন্দোলনকারীদের আশঙ্কা, এই বিল অনুমোদন করা হলে ভিন্নমতাবলম্বীদের চীনের কাছে প্রত্যর্পণের সুযোগ সৃষ্টি হবে। লাখো মানুষের উত্তাল গণবিক্ষোভের মুখে বিলটি থেকে পিছু হটতে বাধ্য হন হংকংয়ের চীনপন্থী শাসক ক্যারি ল্যাম।

প্রথমে বিলের কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিতের ঘোষণা দিলেও পরে আন্দোলনের তীব্রতায় এটি ‘মৃত’ বলে ঘোষণা দেন তিনি। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এক বিবৃতিতে ক্ষমা চান হংকংয়ের বাসিন্দাদের কাছে। তবে এতে আশ্বস্ত হতে না পেরে বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে সেখানকার নাগরিকেরা। পরিস্থিতি মোকাবিলায় দিনের বেলায় বিক্ষোভের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে হংকং কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য