পাকিস্তানের উত্তরপশ্চিমাঞ্চলে সন্দেহভাজন নারী আত্মঘাতীর বোমা হামলায় ৯ জন নিহত ও ৩০ জন আহত হয়েছে। রোববার ডেরা ইসমাইল খানে স্থানীয় এক বেসামরিক হাসপাতালে হামলাটি হয় বলে স্থানীয় কর্মকর্তাদের বরাতে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানি তালেবান হিসেবে পরিচিত তেহরিক ই তালেবান (টিটিপি) পাকিস্তান। আফগানিস্তানের বিদ্রোহী জঙ্গি গোষ্ঠী তালেবানের সঙ্গে নামের মিল থাকলেও পাকিস্তানের এই জঙ্গি গোষ্ঠীটি পৃথকভাবে পরিচালিত হয়।

স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, শহরের বাইরে রাস্তার পাশে একটি চেক পয়েন্টে দুই পুলিশ নিহত হওয়ার পর হামলার এ ঘটনাটি ঘটে।

“তাদের মৃতদেহ যখন হাসপাতালে আনা হয়, এক আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী, যাকে নারী বলে মনে করা হচ্ছে, বোরকা পড়া, বিস্ফোরকভরা জ্যাকেটের ট্রিগার চেপে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ঘটায়,” বলেন স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা ওয়াকার আহমেদ।

বিস্ফোরণে হাসপাতালটির জরুরি বিভাগের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এবং এ কারণে বাধ্য হয়ে আহতদের মধ্যে কয়েকজনকে অন্যান্য শহরের হাসপাতালগুলোতে পাঠাতে হয়েছে বলে জানান তিনি।

টিটিপির হয়ে মুহাম্মদ খুরসানি নামের এক মুখপাত্র হামলার দায় স্বীকার করেছেন। এক মাস আগে সন্ত্রাসবিরোধী পুলিশের অভিযানে টিটিপির দুই কমান্ডার নিহত হওয়ার প্রতিশোধ নিতে এ হামলাটি চালানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। হামলাকারী নারী ছিল না বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ডেরা ইসমাইল খান ছয় হাজার কোটি ডলারের চীন-পাকিস্তান ইকোনমিক করিডরের একটি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র। গেল দশকে এই শহরে বহু আত্মঘাতী হামলার ঘটনা ঘটেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য