দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বীরগঞ্জে সপ্তাহ ব্যাপী নাগরিক সেবা বন্ধ থাকার কারনে পৌরবাসীর ভোগান্তি চরমে উঠেছে।

রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা প্রদানের দাবিতে গত রোববার থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অবস্থান নিয়েছেন। ফলে সপ্তাহ ব্যাপী সেবা বন্ধ রয়েছে চরম ভোগান্তিতে পরেছে নগরবাসী।

বীরগঞ্জ পৌরসভা সুত্রে জানা গেছে, রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে শতভাগ বেতন-ভাতাসহ পেনশনের দাবিতে দেশের ৩২৮টি পৌরসভায় সাত দিন ধরে দাপ্তরিক ও সব ধরনের সেবা কার্যক্রম বন্ধ রেখে।

শনিবার সকালে বীরগঞ্জ পৌরসভার সচিব ও কর্মকর্তা কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হারুন অর রশিদ জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে ফোনে বলেন, রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা পাওয়া আমাদের অধিকার, আমাদের আন্দোলন চলমান রয়েছে, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরবো না। আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের ন্যায়সংগত দাবি অতি দ্রুতই মেনে নেবেন।

বীরগঞ্জ পৌর এলাকার ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা উপজেলা প্রতিরোধ কমিটির সাধারন সম্পাদক সহকারী অধ্যাপক আলহাজ্ব মোঃ আবুসামা ঠান্ডু ও ৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা বীরগগঞ্জ প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোঃ আবেদ আলী বলেন, পৌরসভার সব ধরনের সেবা বন্ধ থাকায় আমরা বেশ ভোগান্তিতে পরেছি, বিশেষ করে এলাকার অলিগলিতে জমেছে ময়লার স্তুুপ, যা থেকে বের হচ্ছে পচা দুর্গন্ধ।

পৌরসভার সকল দাপ্তরিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় পৌরবাসীর নাগরিক সেবা যেমন-জন্ম নিবন্ধন সনদ, মৃত্যু নিবন্ধন সনদ উত্তোলন ছাড়া সকল নাগরিক সেবা ব্যাহত হচ্ছে।

এছাড়া পৌর এলাকায় ল্যা্ম্প পোষ্ট বাতি সেবা বন্ধ থাকায় রাতে অন্ধকারে থাকছে রাস্তা-ঘাট, হাট-বাজার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ফলে রাতের অন্ধকারে পৌর এলাকায় ঘটছে বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ড।

পৌর এলাকার অভিজ্ঞ মহল মনে করেন, রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা সহ পেনশন প্রদান করা হলে তাদের সকল আন্দোলন বন্ধ হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য