সংবাদ সম্মেলনঃ ১৬ জুলাই মঙ্গলবার দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে দিনাজপুর শহরের কলেজ মোড়স্থ বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা রুর‌্যাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (আরডিএফ)’র সাবেক প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর মোঃ আব্দুর রাজ্জাক (রাজু) আরডিএফ’র নির্বাহী পরিচালক মোঃ আলমাস আলী শেখ এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নির্যাতন, হয়রানী, ক্ষমতার অপ ব্যবহার চাকুরী’র নিয়ম-নীতি উপেক্ষা করে ব্যক্তিস্বার্থে মামলা দায়ের করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেন।

নির্যাতিত আব্দুর রাজ্জাক আরো বলেন, চাকুরী নিয়োগ ও পরবর্তী সময় জামানত হিসেবে অতিরিক্ত টাকা ও ফাঁকা চেক দেওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে চাপ সৃষ্টি করেন। তখন আব্দুর রাজ্জাক আরো ৬০ হাজার টাকা এবং ১টি দুই লক্ষ টাকার চেক প্রাপকের নাম ও তারিখ বিহীন জোরপূর্বক স্বাক্ষর করে নেন নির্বাহী পরিচালক।

উক্ত চেক না দিলে চাকুরী থাকবে না বলে বিভিন্ন সময় হুমকি প্রদান করেন। পরবর্তীতে আব্দুর রাজ্জাক ৬/৭/১৪ইং তারিখে চাকুরী হতে অব্যাহতি দিয়ে তার সমস্ত দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়ে ছাড়পত্র গ্রহণ করেন। ছাড়পত্রে উক্ত ২ লক্ষ টাকার চেকটি ৩০/৭/১৪ তারিখের মধ্যে নির্বাহী পরিচালক ফেরৎ দেবেন বলে অঙ্গীকার করেন কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে আব্দুর রাজ্জাককে হয়রানী ও নির্যাতন করার পূর্ব পরিকল্পীতভাব জমাকৃত চেক ফেরৎ না দিয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন।

এছাড়া তার বেতন-বোনাস, পিএফ, গ্রাজুয়েটি, ছুটির টাকা ও জামানতের সম্পূর্ণ টা ফেরৎ না দিয়ে হুমকি প্রদান করে আসছেন এবং উল্ট আব্দুর রাজ্জাকের বিরুদ্ধে চেকের মামলা দায়ের করেন। এছাড়া আলমাস আলী শেখ বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জামানতের চেক দ্বারা মামলা করে মোটা অংকের টাকা আদায়ের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন।

নির্যাতিত ব্যক্তিরা হলেন মোঃ আলমগীর, নিকলাস মুর্মু, আফরোজা বেগম, রুস্তম আলী, শরিফুল ইসলাম, শামীমা বেগম, রোকেয়া বেগম, অকি রায়, মনসুর আলী, নুরুন্নবী, জহিরুল ইসলামসহ আরো অনেকে তার নির্যাতনের স্বীকার হয়ে মানবতার জীবন যাপন করছে। তিনি সংবাদ সম্মেলনে সুবিচার প্রার্থনাসহ নির্বাহী পরিচালক আলমাস শেখসহ তার বর্তমান স্টাফদের বিরুদ্ধে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য