কুড়িগ্রামের উলিপুরে নৌকা ডুবে ৪ শিশুসহ ৫ জন নিহত হয়েছে। গুরুত্বর আহত অবস্থায় ৩ জনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে, আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়নের নতুন অনন্তপুর গ্রামে। এঘটনায় এলাকায় শোকের মাতম চলছে।

নৌকায় থাকা প্রত্যক্ষদর্শি রোকেয়া বেগম, রুবেল, লাভলী বেগম, এনামুল ফকির জানান, আমরা ২০/২৫ জন নারী-পুরুষ ও শিশুসহ নৌকা নিয়ে বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়া স্বজনদের বাড়ী দেখতে যাওয়ার জন্য রওনা দেই। নৌকাটি ওই বাড়ির কাছাকাছি গেলে পানির তীব্র ¯্রােতে নৌকাটি তলিয়ে যায়। ডুবন্ত নৌকায় থাকা শিশু ও মহিলাসহ লোকজন বাঁচার চেষ্টা করেন। এসময় অপর একটি নৌকা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে তাদের উদ্ধারের সহায়তা করেন।

এ ঘটনায় অনেকে সাঁতরিয়ে পাশ্ববর্তি উচু স্থানে উঠে আসে। পরে পানিতে তলিয়ে যাওয়া রূপামণি (৮), হাসিবুর ও রুনা বেগম (৩২)কে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে তাদের মৃতু হয়। গুরুতর অসুস্থ্য লাভলী বেগম(৪৫), রুমি বেগম(১৬), আয়শা সিদ্দিকা (৫)কে উলিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এসময় ওই গ্রামের মনসুর আলীর পূত্র সুমন (৮), রাশেদের কন্যা রুকুমনি (৭) পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয়। পরে বিকেল ৬ টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল নিখোঁজ সুমন ও রুকুমনিকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিখোঁজ রুকু মনিকে ডুবুরীদল উদ্ধারের চেষ্টা করছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ ফখরুল আলম জানান, আহতদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। কুড়িগ্রাম ফায়ার সাভির্সের উপ-সহকারী পরিচালক মঞ্জিল হক জানান, দীর্ঘ ৪ ঘন্টা চেষ্টার পর নিখোঁজ ২ শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এদিকে, মর্মন্তিক এ দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির, অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আবু সাঈদ সরকার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য