গত কয়েক দিনের একটানা ভারী বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢলে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের করতোয়া নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় নতুন করে আরো নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। সেই সাথে নদী ভাঙ্গন তীব্র আকার ধারণ করেছে।

এদিকে করতোয়া নদীর পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে নদীর তীর ভাঙ্গন তীব্র আকার ধারন করেছে। ইতিমধ্যই চক রহিমাপুর এলাকায় বাঁধের সুইচ গেট টি নদীগর্ভে বিলিন হয়েছে।ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে কাটাবাড়ীর ফুলহার (মাঝিপাড়া), তরফমনু, ফতুল্লাপুর রায়ের বাড়ী, শ্যামপুর পার্বতীপুর, সোহাগী, রঘুনাথপুর, শাকপালা, গোসাইপুর, রাখালবুরুজ, বোচাদহ চরবালুয়া,পার সোনাইদাঙ্গা, দরবস্ত, হরিরামপুর, মহিমাগঞ্জ ও শালমারা ইউপি’র অর্ধমতাধিক স্থানে নদী ভাঙ্গন ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এসব এলাকার লোকজন জানিয়েছেন,নদী ভাঙ্গনে বেশ কিছু বসতবাড়ী সহ শতশত বিঘা ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলিন হয়েছে।

এদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছেন, গাইবান্ধার উজান এ ব্রহ্মপুত্র-৩৭ সে.মি.,যমুনা- ৮৫ সে.মি., তিস্তা-৯ সে.মি.ও ঘাঘট নদীর পানি বিপদসীমার ১১ সে.মিটার ও গোবিন্দগঞ্জের করতোয়া নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমা ছুই ছুই করছে।পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে বন্যা আরো অবনিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য