মার্কিন কংগ্রেসের নারী সদস্যদের কটাক্ষ করে টুইট পোস্টের পর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ উঠেছে। ডেমোক্র্যাটদের পাশাপাশি ট্রাম্পের মন্তব্যকে বর্ণবাদী আখ্যা দিয়েছেন কোনও কোনও রিপাবলিকান সমর্থকও।

রবিবার ধারাবাহিক তিনটি টুইট পোস্ট করে কংগ্রেসের চার নারী ডেমোক্র্যাট সদস্যকে কটাক্ষ করেন ট্রাম্প। তাদের উদ্দেশ্য করে ট্রাম্প লেখেন, কংগ্রেসের নারী প্রগতিশীল সদস্যরা মূলত যেসব দেশ থেকে এসেছেন সেসব দেশের সরকারগুলোই চরম বিপর্যয়ের মধ্যে রয়েছে, সেগুলোই সবচেয়ে খারাপ, সবচেয়ে দুর্নীতিবাজ আর সবচেয়ে নিস্ক্রিয়।… আর তারাই এখন বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী আর মহান দেশ যুক্তরাষ্ট্র কিভাবে চলবে তার পরামর্শ দিচ্ছে। এসব ডেমোক্র্যাট সদস্যদের ‘নিজ দেশে’ ফিরে গিয়ে সেসব ঠিক করতে সাহায্য করার পরামর্শ দেন ট্রাম্প।

ট্রাম্পের টুইট মন্তব্যকে জেনোফোবিয়া (ভিনদেশিদের নিয়ে আতঙ্ক) বলে আখ্যা দিয়েছেন হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। তিনি বলেন, ‘আমাদের বৈচিত্র আমাদের শক্তি আর আমাদের ঐক্য আমাদের ক্ষমতা’।

যে চার নারী সদস্যকে উদ্দেশ্য করে ট্রাম্প টুইট করেছেন তাদের তিন জন- আলেক্সজান্দ্রিয়া ওকাসিয়ো কর্টেজ, রাশিদা তালিব এবং আয়ান্না প্রেসলি যুক্তরাষ্ট্রেই জন্ম নিয়েছেন আর বেড়ে উঠেছেন। আর চতুর্থ জন ইলহান ওমর শিশু অবস্থাতেই যুক্তরাষ্ট্রে চলে আসেন।

ট্রাম্পের টুইটের জবাবে মিশিগানের কংগ্রেস সদস্য রাশিদা তালিব প্রেসিডেন্টের অপসারণ দাবি করেছেন। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘একজন নীতিহীন ও সম্পূর্ণ ব্যর্থ প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে না? তিনিই সংকট। তার বিপদজনক আদর্শই সংকট। তাকে অপসারণ করা দরকার’।

আরেক নারী সদস্য আলেক্সজান্দ্রিয়া ওকাসিয়ো কর্টেজ ট্রাম্পকে উদ্দেশ্য করে টুইট বার্তায় লেখেন, ‘আপনি ক্ষুব্ধ কারণ আমরা যে আমেরিকা ধারণ করি আপনি তা ধারণ করতে পারেন না। লুটতরাজ চালানোর জন্য আপনি শঙ্কিত আমেরিকা চান’। সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্সও ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বর্ণবাদ চালানোর অভিযোগ তুলেছেন।

ডেমোক্র্যাটরা ছাড়াও কোনও কোনও রিপাবলিকান সমর্থকও এরইমধ্যে ট্রাম্পের মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন। রিপাবলিকান সমর্থক কলামিস্ট মেগান ম্যাককেইন এই মন্তব্যকে বর্ণবাদী আখ্যা দিয়েছেন। তিনি বলেন, যেসব মানুষকে আমরা স্বাগত জানিয়েছি তাদেরকে আমরা ফিরে যেতে বলতে পারি না। হোয়াইট হাউস প্রতিবেদক ব্রায়ান জে কারেমও বলেছেন, ‘এটা যথেষ্ট বর্ণবাদী নয়?’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য