মোঃ ইউসুফ আলী, আটোয়ারী পঞ্চগড়ঃপঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত একমাত্র ব্যবসা কেন্দ্র ফকিরগঞ্জ বাজার। এ বাজারে এলাকার ব্যবসায়ী সহ দেশের বিভিন্ন জেলা হতে ব্যবসায়ীরা এসে ব্যবসা বাণিজ্য করে লাভবান হয়ে থাকে।

একটু বৃষ্টি হলে বাজারের প্রধান রাস্তা সহ ভিতরের অলি-গলিতে কাঁদা পানিতে ভরে যায়। ফকিরগঞ্জ সরকারি হাট প্রতি বছর লক্ষ লক্ষ টাকায় ইজারা দেয়া হয়। এবার ১৪২৬ বঙ্গাব্দের (১ বছর) জন্য ভ্যাট সহ প্রায় ৪২ লক্ষ টাকায় ইজারা দেয়া হয়েছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন ,প্রতি বছর ইজারার আংশিক অর্থ ফকিরগঞ্জ বাজারে খরচ করলে এ বাজারের এমন বেহাল অবস্থা হতো না।

বাজারটিতে পরিস্কার পরিছন্নতার বালাই নেই। উপজেলা প্রশাসন বলছেন, সরকারি নিয়ম অনুযায়ী প্রতি বছর ফকিরগঞ্জ সরকারি হাট ইজারা দেয়া হয়। যিনি ইজারা নিবেন তিনিই হাট /বাজার পরিস্কার পরিচন্নতার বিষয়টি দেখবেন।

অপরদিকে ফকিরগঞ্জ বাজার হতে সুখাতির রাস্তার দুপার্শ্বে পাকা দোকান ঘর সহ বসত বাড়ী হওয়ায় রাস্তায় হাঁটু পানি জমে থাকছে। এতে ওই রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত হাজার হাজার পথচারী, স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী, ফকিরগঞ্জ বাজারে আসা ক্রেতা বিক্রেতার দুর্ভোগের সীমা থাকে না। বারঘাটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র, ধামোর ইউনিয়ন পরিষদ, আটোয়ারী আদর্শ মহিলা ডিগ্রী কলেজ যাতায়াতের একমাত্র রাস্তাটির অবস্থা অত্যন্ত নাজুক।

মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান জানান, ফকিরগঞ্জ বাজারের সুখাতি মোড় রাস্তায় জলাবদ্ধতার কারণে কলেজে ছাত্রীর উপস্থিতির হার অনেকটা কমে গেছে। প্রতিদিন কলেজে তিন শতাধীক ছাত্রী হতো, অনেক ছাত্রী কলেজের উদ্দেশ্যে বাড়ী থেকে বের হয়ে এসেও জলাবদ্ধতা স্থানে এসে ফিরে গেছে।

ঢেউটিন ও সিমেন্ট ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেন মুক্তা, গালামাল ব্যবসায়ী শিবিল দাস, ও চা দোকানী বিভাস দাস বলেন, জলাবদ্ধতার কারনে দোকানে ক্রেতারা আসতে পারছেন না। এছাড়া ফকিরগঞ্জ বাজারের মাহবুবা প্লাজার সামনে, অটো বাইক স্ট্যান্ডে, আম ও আনারস বিক্রির স্থানে, বাজারের সিঙ্গিয়া মোড়ে এবং গোয়ালদীঘি পেট্রোল পাম্প সংলগ্ন পাকা রাস্তায় জলাবদ্ধতার কারনে সাধারন মানুষ সহ স্কুল কলেজের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা চরম দুর্ভোগের সম্মুখিন হচ্ছে।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, বর্ষা মৌসুমে এ দুর্ভোগ থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে কি করতে হবে আমাকে পরামর্শ দিন। আর বাজারের দুর্ভোগের কথা বলা হলে তিনি বলেন, ফকিরগঞ্জ বাজার উন্নয়নের পরিকল্পনা হাতে আছে। খরা মৌসুমে উন্নয়ন কাজে হাত দেয়া হবে। ভুক্তভোগীরা বিভিন্ন স্থানের জলাবদ্ধতা সহ বাজারের সমস্যা সমাধানের জন্য উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য