জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ নীলফামারীর সৈয়দপুরে অভিযান চালিয়ে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ রাখার দায়ে ৫ ফার্মেসীর ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত ও জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

৮ জুলাই সোমবার বেলা ১২ টা থেকে ২ টা পর্যন্ত ওই অভিযানে নেতৃত্ব দেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার ও নীলফামারী জেলার ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোমতাজ বেগম। এসময় তারা বিভিন্ন ঔষধের দোকানে সরেজমিনে গিয়ে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধের ছড়াছাড়ি প্রতক্ষ করেছেন।

মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ রাখার দায়ে এ সময় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন আইন ২০০৯ এর ৫১ ধারায় সৈয়দপুর প্লাজা মার্কেটের নোভা ড্রাগসকে ২০ হাজার টাকা, স্মৃতি মেডিকেল স্টোর কে ১৫ হাজার টাকা, এস আর প্লাজার সৌদি ফার্মেসীকে ৫ হাজার টাকা, সিনেমা রোডের নিউ ইমরান ফার্মেসীকে ৫ হাজার টাকা এবং পাঁচমাথা মোড়ের রাণী ফার্মেসীকে ৫ হাজার জরিমানা করা হয় এবং মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধগুলো জব্দ করে পুড়িয়ে দেওয়া হয়। সাথে সতর্ক করা হয় ঔষুধ দোকানের মালিকদের।

অভিযান শেষে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিমল কুমার সরকার বলেন, আমরা অভিযানে বিভিন্ন ঔষুধের দোকানে মেয়াদোত্তীর্ণ ও অনুমোদনহীন ঔষুধ পেয়েছি এবং ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে জরিমানাও আদায় করা হয়েছে। ভবিষ্যতে কোন দোকানে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ পাওয়া গেলে আরো কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোমতাজ বেগম বলেন, সৈয়দপুরে প্রথম দিন অভিযানে ৫ টি দোকানে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ পাওয়া গেছে। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এবং এ অভিযান আগামীতেও অব্যাহত থাকবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য